গোটা দেশব্যপী জাতীয় নাগরিকপঞ্জী বা এনআরসি হবে না। সারা দেশের মানুষের নাগরিকত্ব প্রমাণ চাইবে না কেন্দ্রীয় সরকার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁকে এমনটাই প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। শুক্রবার, নয়াদিল্লি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর এমনটাই দাবি করেছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী তথা শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে। এদিন পুত্র তথা মহারাষ্ট্রের অন্যতম মন্ত্রী আদিত্য ঠাকরে-কে সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন উদ্ধব।

পরে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে বৈঠকের আলোচিত বিষয় নিয়ে মুখ খোলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে আদিত্য ঠাকরে ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আরেক শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত। উদ্ধব জানান, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সিএএ, এনআরসি এবং এনপিআর-এর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তিনি আরও বলেন , সিএএ আইন নিয়ে কারোর ভয় পাওয়া উচিত নয়। এই আইন কারও কাছ থেকে নাগরিকত্ব কেড়ে নেবে না। প্রতিবেশী দেশগুলির সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব দেবে।

এর আগে সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ গোটা দেশ জুড়ে এনআরসি করার কথা ঘোষণা করেছিলেন। সিএএ আইন নিয়ে দেশ জোড়া বিক্ষোভের আগুনে তাতে ঘি পড়েছিল। তারপর থেকে দেশের বিশেষত মুসলমান সম্প্রদায় ভয়ে রয়েছেন, অসমে-এর আদলে দেশব্যাপী এনআরসি করা হলে নাগরিকত্ব প্রমাণ করতে না পারায় তাদের বিদেশী হিসাবে ঘোষিত হতে হবে। প্রতিবেশী দেশ থেকে পালিয়ে আসা বলে গন্য করা হবে।

আরও পড়ুন - ৩০বার ডনবৈঠক দিলেই বিনামূল্যে টিকিট, অভিনব উদ্যোগ নিল ভারতীয় রেল, দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন ৃ- গ্রামের বুক চিরে ছুটবে রেলগাড়ি, ভিটেমাটি হারানোর আতঙ্কে মণিপুরx

আরও পড়ুন - নির্বীজকরণের জন্য পুরুষ চাই, না হলে স্বাস্থ্যকর্মীদের চাকরি হারানোর ফতোয়া

এর আগে এনপিআর-ও করবেন না বলে জানালেও এদিন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠছকের পর মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন, সারা দেশে এনআরসি কার্যকর হবে না। কাজেই সিএএকে ভয় পাওয়ার দরকার নেই। এতে নিপীড়িত সংখ্যালঘুরা উপকৃত হবেন। এরপরও সারাদেশে নাগরিকদের উপর কোনও বিপদ নেমে আসলে শিবসেনা তার বিরোধিতা করবে।