সোমবার থেকে শুরু হয়েছে সংসদের শীতকালীন অধিবেশন। এই অধিবেশনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিলটি আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার, তা হল জাতীয়  নাগরিকপঞ্জী বা এনআরসি সংশোধনী বিল, ২০১৯। অসমের পর দেশের সর্বত্রই নাগরিকপঞ্জী তৈরি করতে চাইছে মোদী সরকার। আর সেই বিলের সলতে পাকানো শুরু করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

মঙ্গলবার, রাজ্যসভায় আরও একবার অমিত শাহ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন সারা দেশেই নাগরিকপঞ্জী তৈরি করা হবে। এর আগে বারবার অমিত শাহ বলেছেন ভারতের প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা অমুসলিম সম্প্রদায়ের শরনার্থীদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্যই এর আগের জাতীয় নাগরিকপঞ্জী বিলের সংশোধনী আনা হচ্ছে। রাজ্যসসভায় কিন্তু কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুসলিম সহ কোনও সম্প্রদায়ের মানুষেরই এতে ভয় পাওযার কিছু নেই বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

গত ৩১ অগাস্ট অসমে চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জী প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে নাগরিকত্বের আবেদন করা ১৯ লক্ষ মানুষের নাম বাদদ পড়েছে। অমিত শাহ জানিয়েছেন, এই এনআরসি তালিকাছুটদেরও নাগরিকত্ব প্রমাণের ষথেষ্ট সুযোগ দেওয়া হবে। তাঁরা আপাতত তহসিল পর্যায়ে গঠিত ফরেন ট্রাইবুনালগুলিতে আবেদন করতে পারেন। এমনকী যাদের আবেদন করার ক্ষেত্রে আর্থিক সমস্যা রয়েছে, অসম রাজ্য সরকার তাদের আর্থিক সহায়তাও করবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেইসঙ্গে তাদের আইনি সহায়তার খরচাপাতিও সরকার থেকেই বহন করা হবে।