জম্মু ও কাশ্মীরে চলতে থাকা ক্রমবর্ধমান জঙ্গি হামলার জেরে কার্যত উত্তপ্ত উপত্যকা। শনিবার ভোর থেকে ফের অশান্ত হতে শুরু করে সেখানকার পরিবেশ। শনিবার ভোররাত থেকে সেনা-জঙ্গির গুলির লড়াই শুরু হয় বারামুলা জেলার অন্তর্গত সোপরের মালমাপানপোরায়। এই সংঘর্ষের জেরে আহত হয়েছেন সেনাবাহিনীর এক সদস্য এবং  একজন সন্ত্রাসবাদীর মৃত্যু হয়েছে বলে খবর।

সংবাদ সংস্থাসূত্রে খবর, এখনও পর্যন্ত সেখানে গোলাবর্ষণ জারি রয়েছে এবং গোটা এলাকা ঘিরে রেখেছে নিরাপত্তাবাহিনী। এর একদিন আগে সোপিয়ানে সেনা-জঙ্গির গুলির লড়াইয়ের জেরে প্রাণ হারিয়েছেন এক জওয়ান। সেই সঙ্গে আহত হয়েছিলেন আরও এক জওয়ান। সেই ঘটনার পরই ক্রমাগতই গুলির শব্দে কেঁপে উঠছে উপত্যকা। এই সংঘর্ষ চলাকালীন ইতিমধ্যেই অনেকগুলি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার হয়েছে বলে খবর। সূত্রের খবর শহিদ সেনা জওয়ানের নাম সিপাহি রামভীর। এদিন নর্দান কম্যান্ডের তরফে সিপাহি রামভীরের এই সর্বোচ্চ ত্যাগকে স্যালুট জানানো হয় এবং তাঁর পরিবারের প্রতিও গভীর সমবেদনা জানানো হয়। 

 

পাশিপাশি অমরনাথ যাত্রায় জঙ্গি নাশকতা হতে পারে এই আশঙ্কায় শুক্রবার অমরনাথ যাত্রা স্থগিত রাখার নির্দেশ দেয় জম্মু ও কাশ্মীর সরকার। পূন্যার্থীদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দাজ্য ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সন্ত্রাসবাদীদের কড়া হাতে দমন করতে ইতিমধ্যেই প্রথম ১০ হাজার এবং তার এক সপ্তাহের মধ্যেই আরও ২৫ হাজার আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারেরর তরফ থেকে। তবে ক্রমাগত চলতে থাকা সেনা-জঙ্গির গুলির লড়াইয়ে এখন কার্যত ভয়াবহ পরিস্থিতি রয়েছে উপত্যকায়।