জম্মু কাশ্মীরে ভারত সরকারের ৩৭০ ধারা বাতিলের ঠিক এক বছরের মাথাতেই পাকিস্তান তাদের এক নয়া রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করেছে পাকিস্তান। কাশ্মীরের ও পাকিস্তানের সাধারণ মানুষের আকাঙ্খা পূরণ করেছে সেই মানচিত্র বলে দাবি করেছিলেন ইমরান খান। এতে পাকিস্তানিদের আকাঙ্খা সত্যি সত্যি পূরণ হয়েছে তা জানা নেই, কিন্তু কূটনৈতিক ক্ষেত্রে নিজেদের তৈরি জালেই আটকে পড়তে চলেছে পাকিস্তান। বৃহস্পতিবার তা স্পষ্ট করে দিলেন বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব।

পাকিস্তানের নয়া মানচিত্রে সম্পূর্ণ জম্মু ও কাশ্মীর, লাদাখ উপত্যকার সঙ্গে সঙ্গে পশ্চিম গুজরাতের কিছু অংশকেও তাদের অঞ্চল হিসাবে দাবি করেছে ইমরান সরকার। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব এই মানচিত্রটিকে 'অযৌক্তিক' বলে প্রত্যাখ্যান করে জানিয়েছেন, এই ধরণের অবাস্তব দাবি পরিষ্কার বলে দিচ্ছে, পাকিস্তান সীমান্ত সন্ত্রাসবাদকে ব্যবহার করে আরও বেশি ভারতীয় অঞ্চল দখল করতে চায়।

কুলভূষণ যাদব মামলার বিষয়ে তিননি জানান, ইসলামাবাদ আদালত পাক সরকারকে যাদবের পক্ষে ভারতকে আইনজীবী নিয়োগের সুযোগ দিতে বলেছে। কিন্তু পাকিস্তানের পক্ষ থেকে এই নিয়ে ভারতকে সরকারি ভাবে কিছু জানানো হয়নি। তবে পাকিস্তানকে আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের রায় কার্যকর করতেই হবে বলে জানিয়েছেন শ্রীবাস্তব। ভারতকে প্রাসঙ্গিক দলিল সরবরাহ করা, কুলভূষণ যাদবকে নিরবচ্ছিন্ন, নিরপেক্ষ ও নিঃশর্ত কনসুলার অ্যাক্সেস দেওয়ার মতো বিষয় রয়েছে।