মাত্র দুমাস আগে হয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় নিসর্গের স্মৃতি আবার ফিরে এল মুম্বইয়তে। প্রশাসন ও রাজ্যের মন্ত্রীদের অনুরোধে বুধবার দুপুর থেকেই প্রায় গোটা বাণিজ্য নগরী গৃহবন্দি হয়ে রইল। এই পরিস্থিতি রাতেও বিশেষ বদলাবে না।  আজ রাতভর বৃষ্টি চলবে। সঙ্গে বইবে ঝোড়ো হাওয়া। তবে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।  যদিও পুলিশের তরফে জানান হয়েছে ২০০৫ সালের পর এত বৃষ্টি আর কখনও দেখেনি মুম্বই। 

আবহাওয়া দফতরের পূর্বভাস অনুযায়ী এদিন বেশ কয়েকটি এলাকায় হাওয়ার গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৬০-৭০ কিলোমিটার। কিন্তু কোনও কোনও জায়গায় ঝোড়ো হাওয়া বয়েছে ১০৭ কিলোমিটার বেগে। সঙ্গে তুলুম বৃষ্টি। ঝোড়ো হাওয়ার দাপটে উপড়ে গেছে গাছ। বেশ কয়েকটি এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ে। বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে যান চলাচল।  বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে যাওয়ায় ব্যাহত হয়েছে বিদ্যুৎ পরিষেবা। 

ব্যাহত হয় মুম্বইয়ের লাইফলাইন রেল পরিষেবা। মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে জানান হয়েছে আগামিকালও পরিস্থিতির উন্নিতি হবে না। তাই সরকারি আধিকারিক ও কর্মীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  প্রশাসনের তরফ থেকে জানান হয়েছে নিচু এলাকাগুলিতে জল জমেগেছে। সন্ধ্যে ৭টার পর থেকেই শুরু হয় প্রবল বৃষ্টি। মুম্বইয়ের পুলিশ জানিয়েছে   গত ১০ ঘণ্টায় ২৩০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। ২০০৫ সালের পর  এটাই সবথেকে ভারী বৃষ্টি হিসেবে বলা হয়েছে। 

অন্যদিকে মুম্বই ও সংলগ্ন এলাকা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীমহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন। সমস্তরকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।  

মুম্বইতে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।