২০ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা - গ্রামীণ (PMAY-G)-এর আওতায় উত্তরপ্রদেশ-কে ২৬৯১ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্রদান করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গ্রামীন এলাকার প্রায় ৬.১ লক্ষ মানুষ এর সুবিধা পাবেন বলে জানানো হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে। ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে আয়োজিত এই অনুষ্টানে প্রধানমন্ত্রী ছাড়া সংযুক্ত হবেন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথও।

এর আগেই উত্তরপ্রদেশে ৮০ হাজার মানুষ এই প্রকল্পের অর্থ সহায়তার প্রথম কিস্তি পেয়েছিলেন। বুধবার তাদের দ্বিতীয় কিস্তির অর্থ দেওয়া হবে। এছাড়া আরও ৫.৩ লক্ষ মানুষ পাবেন পিএমএইওয়াই-জি প্রকল্পের প্রথম কিস্তির অর্থ।

২০২২ সালের মধ্যে প্রত্যেক ভারতবাসীর মাথার উপর ছাদ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছএন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এর জন্য ২০১৬ সালের নভেম্বরে তিনি প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা - গ্রামীণ প্রকল্প চালু করেছিলেন। এখনও পর্যন্ত এই প্রকল্পের আওতায় সারা দেশে ১.২৬ কোটি বসতবাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই প্রকল্পের আওতায় সমতলের প্রত্যেক সুবিধাভোগীকে ১.২০ লক্ষ টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়। পার্বত্য এলাকা, উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলি, দুর্গম এলাকা, জম্মু ও কাশ্মীর লাদাখ-এর মতো অঞ্চলের বাসিন্দারা পান ১.৩০ লক্ষ টাকার অনুদান।

বসতবাড়ি তৈরির জন্য আর্থিক অনুদানের সঙ্গে সঙ্গে PMAY-G প্রকল্পের সুবিধাভোগকারীরা, মনরেগা (MGNREGS) প্রকল্পে অদক্ষ শ্রম মজুরির সহায়তা এবং স্বচ্ছ ভারত মিশন-গ্রামীণ (SBM-G) প্রকল্পের অধীনে শৌচাগার তৈরির জন্য ১২,০০০ টাকা করে পেয়ে থাকেন। এছাড়া এই প্রকল্পের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা প্রকল্পের আওতায় এলপিজি সংযোগ, বিদ্যুৎ সংযোগ, জল জীবন মিশনের আওতায় নিরাপদ পানীয় জল-এর মতো ভারত সরকারের অন্যান্য প্রকল্পকেও জুড়ে নেওয়া যায়।