আরও একবার নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী।  সন্ধে সাড়ে সাতটা বা তার কিছুটা বেশি সময়ে দিল্লির দিনদয়াল উপাধ্যায় ভবনে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ সবেমাত্র বিজয়ী ভাষণ সমাপ্ত করেছেন, আর তারপরেই মঞ্চে উঠলেন নরেন্দ্র মোদী। তাঁর ভাষণে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে রইল গোটা দেশ। 'মোদী' ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠল চারিদিক। তাঁদের জয়ের রেশ এখনও অব্যাহত।

এরই মাঝে আজ সকাল সকাল বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আদবাণীর বাসভবনে গিয়াছিলেন নরেন্দ্র মোদী, সঙ্গে ছিলেন অমিত শাহ। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই শুরু হয়েছে নয়া রাজনৈতিক চর্চা। নিছক আশীর্বাদ নিতে নাকি সরকারের স্ট্রাটেজি নিয়ে কথা বলতে আদবানীর শরণাপন্ন হয়েছেন মোদী-সেই নিয়ে শুরু হয়েছে চাপা গুঞ্জন। দিল্লির গলিতে এখন অনেক গল্প। কে হবেন কোন মন্ত্রী, কে কোন দফতর পাবেন সবই আছে সেই আলোচনা চক্রে। কিন্তু তার মাঝেই আদবাণী ভবনে তাদের আগমন নতুন করে জল্পনা উস্কে দিয়েছে।

সকাল ১০টা নাগাদ প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে একটি ছবি শেয়ার করে লেখেন, আদবাণীজীর ডাকে তিনি এসেছেন।  বিজেপি দলের সাফল্যের পিছনে রয়েছেন তাঁর মতো মহান নেতা, যাঁর কয়েক দশকের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলেই সাধারণ মানুষ ভারতীয় জনতা পার্টির ভাবাদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়েছে।