এদেশে রাজনৈতিক নেতাদের সম্পত্তি নিয়ে কাঁটাছেড়া করার রেওয়াজ নতুন নয়। এবার সেই তালিকায় নাম উঠল প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদিরও। যিনি নিজেকে 'প্রধানসেবক' বলে দাবি করেন, সেই মোদির মাত্র এক বছরে সম্পত্তির পরিমাণ বেড়েছে ৩৬ লক্ষ টাকা! 

আরও পড়ুন: হাথরসকাণ্ডে আবারও প্রশ্নের মুখে যোগীর পুলিশ, লোপাট ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ

ভোটের সময়ে নিজেদের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি হিসেবে নির্বাচন কমিশনকে জানাতে হয় প্রার্থীদের। ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটের সময়ে যে হিসেব দাখিল করছিলেন, সেই  অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির সম্পত্তির পরিমাণ ছিল ২.৪৯ কোটি টাকা। ৩০ জুন পর্যন্ত তাঁর আয় ও মোট সম্পত্তির খতিয়ান প্রকাশ করেছে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর। মাত্র এক বছরে মোদির সম্পত্তির পরিমাণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২.৮৫ কোটি টাকা! করোনা আতঙ্কের মাঝেও কীভাবে মোদির সম্পত্তির পরিমাণ এতটা বাড়ল? মূলত বেতন আর আগের আমানতের সুদ ব্যাঙ্কে জমার দৌলতেই এই বৃদ্ধি।

আরও পড়ুন: বোম্বে হাইকোর্টে যান, টিআরপি মামলা রিপাব্লিক টিভিকে কড়া বার্তা সুপ্রিম কোর্টের

নিজেদের আয় ও সম্পত্তির হিসেব প্রকাশ করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রীর রাজনাথ সিং, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, অর্থমন্ত্রীর নির্মলা সীতারমণ, কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর-সহ আরও অনেকেই। দেখা যাচ্ছে, মোদির সম্পত্তি বাড়লেও, তা কমেছে অমিত শাহের। ২০১৯ সালের ৩২.৩ কোটি টাকা থেকে কমে তা নেমে এসেছে ২৮.৬৩ কোটিতে। কারণ, মূলধনী বাজারে শেয়ার ও ঋণপত্রের মূল্য় হ্রাস। আর এক বছর আগে মোট সম্পত্তির পরিমাণ যত ছিল, এখনও সেই একই পরিমাণ সম্পত্তির মালিক কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।