আরও ১৮০০০ কোটি টাকা ঢুকতে চলেছে ৯ কোটি কৃষকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী-কিষাণ সম্মান নিধি-র পরবর্তী কিস্তি প্রকাশ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই প্রকল্পে সরাসরি অর্থ আসে কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে। তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে গত একমাস ধরে চলা কৃষক বিক্ষোভের মধ্যেই এই পদক্ষেপ নিল মোদী সরকার। ২০১৯ সালে প্রধানমন্ত্রী-কিষাণ স্কিমের প্রথম কিস্তি প্রকাশ করা হয়েছিল।

এদিন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন অংশের কৃষকদের সঙ্গে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বলেন, কৃষকরা যাতে কম সুদের হারে ঋণ পায়, তা নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নিয়েছিল অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকার। তাঁর ৯৬তম জন্মদিনকে স্মরণীয় করে রাখতে এই দিনেই প্রধানমন্ত্রী-কিষাণ সম্মান নিধি-র একটি কিস্তি এই দিন প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাঁর সরকার। সরকারের এই উদ্যোগ ফসলে বৈচিত্র্য আনতে সহায়তা করবে বলে আশা প্রকাশ করেন মোদী।

বৃহস্পতিবারই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করে জানিয়েছিলেন, ২৫ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি-র পরবর্তী কিস্তি প্রকাশ করে দেশের কৃষকদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন তিনি। তিনি দাবি করেছিলেন, এই দিনটি দেশের 'অন্নদাতাদের' জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা যাতে সর্বাধিক মানুষের কাছে পৌঁছায় তার জন্য চেষ্টার ত্রুটি রাখেনি বিজেপি। দলের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক অরুণ সিং, দলীয় কার্যকর্তাদের চিঠি লিখে এর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের একটি তালিকা পাঠিয়ে দিয়েছিলেন। সারাদেশে ১৯,০০০-এরও বেশি জায়গায় কৃষকদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ শোনার এবং তাঁর সঙ্গে কথোপকথনে অংশ নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং রাজ্যের উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশবপ্রসাদ মৌর্য।