বৃহস্পতিবার বেঙ্গালুরুতে আসাদইদ্দিন ওয়াইসির সভায় মঞ্চ থেকে 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ' বলে স্লোগান দিয়ে হইচই ফেলে দিয়েছেন অতিবামপন্থী ছাত্রী নেত্রী অমূল্যা লেওনা। এবার তাঁর বাড়িতে হামলা চালালো ডানপন্থীরা কর্মীরা। যারপর তাঁর পরিবারের জন্য বিশেষ সুরক্ষার ব্যবস্থা করেছে পুলিশ। তবে তাঁর বাবা, অমূল্যার মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেছেন। তাঁর অভিযোগ 'মুসলমানদের সঙ্গে মিশেই মেয়ের এই অবস্থা।

চিকামাগালুরুর কোপ্পাল-এ অমূল্যার বাবা-মা থাকেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় কয়েকজন ডানপন্থী সংগঠনের কর্মী তাঁদের বাড়ির সামনে জড়ো হন বলে অভিযোগ। তারা বাইরে থেকে স্লোগান দিতে থাকে, এমনকী বাড়ি লক্ষ্য করে ইঁট-পাথরও ছোঁড়ে বলে পুলিশ-কে জানিয়েছেন অমূল্যার বাবা। তাতে তাঁদের বাড়ির জানলার কাচও ভেঙে গিয়েছে। এছাড়া একটি ভাইরাল হওয়া ভিডিও-তে কিছু লোক-কে অমূল্যার বাবা-কে তার মেয়ের কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রশ্ন করতে দেখা গিয়েছে। তাকে 'ভারতমাতা কি জয়' বলাতেও দেখা গিয়েছে।   

আরও পড়ুন - ওয়াইসির মঞ্চে 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ' স্লোগান, জোড়া অস্বস্তিতে এআইমিম প্রধান, দেখুন ভিডিও

অমূল্যার বিরুদ্ধে ওই কাণ্ডের জন্য রাষ্ট্রদোহের দায়ে মামলা করা হয়েছে। আপাতত তাঁকে ১৪ দিনের বিচারবিভগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। অমূল্যার বাবা মেয়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা হওয়ার ঘটনায় অবাক হলেও মেয়ে যে সমস্যায় পড়েছেন তাতে অবাক হননি। সংবাদমাধ্যম-কে তিনি জানিয়েছেন, অমূল্যা যা বলেছে, তা ভুল। তাঁর দাবি তাঁর মেয়ে কিছু মুসলমানের সঙ্গে মিশছিল, তাঁর কথা শুনত না।

আরও পড়ুন - খোলামঞ্চে 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ', অমূল্যা-ই নাকি বাধ্য করেছিলেন 'বন্দে মাতরম' গাইতে

তিনি আরও বলেন, মেয়ে যা বলেছে তা তিনি সমর্থন করেন না। তিনি অমূল্যা-কে বহুবার বলেছিলেন, মুসলমানদের সঙ্গে না মিশতে, কিন্তু সে তাঁর কথা শোনেনি। তিনি আরও বলেন অমূল্যা-কে তিনি অনেকবার বলেছিলেন, তাড়াহুড়ো করে কোনও কথা না বলতে, তাতে সে কান দেয়নি। আগ বাড়িয়ে কথা বলতে গিয়েই এরকম একটা কথা মেয়ে বলে ফেলেছে বলে মনে করছেন তিনি।

আরও পড়ুন - প্রতিবাদের নামে ভাঙচুর থেকে অগ্নিসংযোগ, ৬৩ লক্ষ টাকার ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ

বৃহস্পতিবার অল ইন্ডিয়া মজলিস-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন-এর সভাপতি আসাদউদ্দিন ওয়াইসির নেতৃত্বে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে একটি সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছিল বেঙ্গালুরুতে। সভা চলাকালীন মঞ্চে অমূল্যা উছে এসে ওয়াইসির হাত থেকে মাইক নিয়ে 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ' বলে স্লোগান দেন। এর পরেই সমাবেশে তোলপাড় শুরু হয়। তাঁকে সঙ্গে সঙ্গে সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে যান মহিলা পুলিশ কর্মীরা। ওয়াইসি-ও সঙ্গে সঙ্গে ওই মঞ্চেই বলেছিলেন, তিনি 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ' স্লোগান সমর্থন করেন না।