প্রকাশ্যে ধমক দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদী। তাতে তখনকার মতো নিজের কথা ফিরিয়ে নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা ওরফে প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর যে তা মন থেকে মানতে যে পারেননি, তার প্রমাণ মিলল মঙ্গলবার। খোদ সংসদে দাঁড়িয়ে জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসে-কে তিনি ফের একবার 'দেশভক্ত'-এর তকমা দিলেন। অপবিত্র করলেন গণতন্ত্রের মন্দির-কে।

বুধবার সংসদে স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ -এর সংশোধনী বিলের আলোচনা চলাকালীন ডিএমকে সংসদ এ রাজা, কেন গান্ধীকে হত্যা করেছিল সেই নিয়ে নাথুরাম-এর একটি উক্তি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, গডসে নিজেই স্বীকার করেছিল গান্ধীকে হত্যার আগে সে ৩২ বছ ধরে জাতির জনকের প্রতি রাগ পুষে রেখেছিল। একটি নির্দিষ্ট দর্শন থেকেই সে গান্ধীকে হত্যা করেছিল।
 
সঙ্গে সঙ্গে লাফিয়ে উঠে রাজা-কে তামিয়ে দিয়ে প্রজ্ঞা বলেন, এই বিষয়ে একজন 'দেশভক্ত'-এর উদাহরণ দেওয়া যায় না। এরপরই সংসদে তীব্র গোলমাল শুরু হয়। বিরোধীরা এককাট্টা হয়ে প্রজ্ঞার কথার প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন। বেগতিক দেখে অন্যান্য বিজেপি সাংসদরা প্রজ্ঞাকে টেনে বসিয়ে দেন।

এর আগে লোকসভা ভোটের প্রচারপর্বেও নাথুরাম গডসে-কে দেশভক্ত বলে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন প্রজ্ঞা। ভোটের বালাই বড় বালাই। প্রধানমন্ত্রী প্রকাশ্যে প্রজ্ঞার কড়া সমালোচনা করেছিলেন। বিজেপি দলের পক্ষ থেকেও প্রজ্ঞার সমালোচনা করে তাঁকে মন্তব্য ফিরিয়ে নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। চাপের মুখে সেই সময়, তা মেনেও নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তারপরেও মন থেকে গডসে প্রীতি যায়নি।