বিতর্কিত বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর ওরফে সাধ্বী প্রজ্ঞার রোষাণলে পড়ল স্পাইস ডেট উড়ান সংস্থা। ভোপালের সাংসদের অভিযোগ, দিল্লি থেকে ভোপালগামী স্পাইস জেটের উড়ানে তিনি যে আসনটি বুক করেছিলেন তাঁকে সেই আসনে বসতে দেওয়া হয়নি। এই নিয়ে রাজা ভোজ বিমান বন্দরে নামার পর তিনি অভিযোগও নথিভুক্ত করেছেন।   

সূত্রের খবর শুধু অভিযোগ জানানোই নয়, তার আগে রাজা ভোজ বিমানবন্দরে প্রজ্ঞা বিমানের মধ্যেই ধরণায় বসেন। বিমান অবতরণের পর সব যাত্রী বিমান থেকে নেমে গেলেও তাঁকে পছন্দের আসন না দেওয়ার প্রতিবাদে তিনি বিমান থেকে নামতে চাননি। পরে বিমানবন্দরের বাইরে সাংবাদিকদের সামনে অবশ্য বিজেপি সাংসদ বিমানে ধরনায় বসার কথা অস্বীকার করেন। তাঁর অভিযোগ স্পাইস জেট বিমান সংস্থার কর্মীরা যাত্রীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছেন। তিনি যে আসনটি বুক করেছিলেন, তাঁকে কোনও কারণ না দেখিয়েই সেখানে বসতে দেওয়া হয়নি। তাই তিনি রাজা ভোজ বিমানবন্দরের ডিরেক্টরকে ফোন করেন এবং সংস্থার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ডিরেক্টর অনিল বিক্রম প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি জানিয়েছেন সোমবার সাংসদের পছন্দের আসন না পাওয়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। অতীতে বারবারই প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকে বিভিন্ন বিতর্কে জড়াতে দেখা গিয়েছে। মালেগাঁও বিস্ফোরণের ঘটনাতেও অভিযুক্ত হিসেবে তাঁর নাম ছিল। তাঁর ক্যানসার সাড়া নিয়ে সর্বৈব মিথ্যা দাবি করেছেন। তাঁর সাম্প্রতিকতম বিতর্ক, শীতকালীন অধিবেশনে মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী নাথুরাম গডসে-কে দেশপ্রেমিক বলা।