সুষমা স্বরাজের প্রয়াণে শোকের ছায়া দেশজুড়ে।  হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ৬৭ বছর বয়সে দিল্লির এইমস-এ তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। সুষমার প্রয়াণে রাজনৈতিক মহলেও শোকের ছায়া নেমে এসেছে। দিল্লির বাসভবনে সুষমাকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে হাজির হয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ-সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা 

সুষমা স্বরাজকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে হাজির হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রীর বাসভবনে গিয়ে প্রয়াত নেত্রীর মরদেহে পুষ্পস্তবক দিয়ে প্রণাম করেন তিনি। প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রীর পরিবারের সদস্যদেরও সমবেদনা জানান প্রধানমন্ত্রী। টুইটারে প্রধানমন্ত্রী  লেখেন, 'সুষমাজির প্রয়াণ আমার কাছে ব্যক্তিগত ক্ষতি। উনি দেশের জন্য যা যা করেছেন, সবকিছুর জন্য মানুষ তাঁকে মনে রাখবেন।'  

বুধবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত হয়েছিলেন। তিনি টুইটে জানান ' আমি স্তম্ভিত সুষমার এই মৃত্যুর খবরে, একজন অত্যন্ত প্রিয় নেত্রী ছিলেন, তিনি সবসময় আমাদের মধ্যে বেঁচে থাকবেন'।   

এছাড়া তাঁর বাসভবনে উপস্থিত ছিলেন সহ-রাষ্ট্রপতি এম বেঙ্কাইয়া নাইডু। এছাড়া ছিলেন লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা। ওম বিড়লা টুইটে জানান ' আমি গভীর ভাবে দুঃখিত, তিনি ভীষণ ভাবে সক্রিয় বক্তা ছিলেন।

হাসপাতাল থেকে মঙ্গলবার রাতেই বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয় প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রীর দেহ৷ তাঁর বাসভবনে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজনৈতিক মহলের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা। সেখানে মেয়ে প্রতিভা আডবাণীর সঙ্গে পৌঁছে গিয়েছিলেন সিনিয়র বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণীও। দুপুর ১২টা থেকে ৩টে অবধি প্রয়াত প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের দেহ শায়িত রাখা হয় বিজেপি-র সদর দফতরেও।