অরুণ জেটলির শেষযাত্রায় থাকতে পারছেন না প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিন দেশের সফরে এই মুহূর্তে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই কারণেই ইচ্ছে থাকলেও নিজের প্রাক্তন সতীর্থের শেষযাত্রায় থাকতে পারলেন তিনি। 

অরুণ জেটলির মৃত্যু সংবাদ পাওয়ার পরেই শোকবার্তা জানিয়ে টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানেই তিনি জানান, প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর স্ত্রী এবং ছেলে রোহনের সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁর। বেশ কয়েকটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবর, তখনই জেটলির পরিবারের সদস্যরা তাঁকে বিদেশ সফর বাতিল না করার কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর দফতর সূত্রেরও খবর, প্রধানমন্ত্রীর বিদেশ সফরে কোনও পরিবর্তন হচ্ছে না। 

আরও পড়ুন- রবিবার শেষকৃত্য, অরুণ জেটলিকে শেষ শ্রদ্ধা জানালেন অমিত শাহ

আরও পড়ুন- নোটবন্দি থেকে জিএসটি, রাফাল, মোদী সরকারের বিপদের বন্ধু ছিলেন জেটলি

তিন দেশের সফরে ফ্রান্স থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখান থেকে বাহরিনে যাওয়ার কথা তাঁর। 

প্রধানমন্ত্রী না থাকতে পারলেও জেটলির মৃত্যুসংবাদ পেয়ে হায়দরাবাদ থেকে দ্রুত দিল্লিতে পৌঁছন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ইতিমধ্যেই অরুণ জেটলির বাসভবনে গিয়ে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন অমিত শাহ।  রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দও অরুণ জেটলির বাসভবনে পৌঁছে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করেন। প্রয়াত নেতার পরিবারের সদস্যদেরও সমবেদবনা জানান রাষ্ট্রপতি। বিজেপি-র অন্যান্য শীর্ষ নেতারাও প্রয়াত নেতার বাসভবনে রয়েছেন। উত্তরপ্রদেশ থেকে আসছেন মুখ্য়মন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।