করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে অভিনব উদ্যোগ। সোনার দাম যখন গ্রাম প্রতি ৫০ হাজার টাকা ছাড়িয়েছে তখনই সোনা দিয়ে তৈরি করা মাস্ক পরে চমকে দিলের পুনের বাসিন্দা শঙ্কর কুরাদে। তিনি পুনের পিপরি চিনচওয়াদের এলাকার বাসিন্দা। তিনি জানিয়েছে এই মাস্ক তৈরি করতে তাঁর খরচ হয়েছে ২ লক্ষ ৮৯ হাজার টাকা। 

শঙ্কর জানিয়ছেন ছিদ্র জারি যুক্ত এই সোনার মাস্কটি পরলে নিশ্বাস নিতে কোনও সমস্যা হয় না। শ্বাসপ্রশ্বাস নেওয়ার ক্ষেত্রে এটি আরামদায়ক বলেই মন্তব্য করেছেন তিনি। কিন্তু করোনাভাইরাসের জীবাণু কতটা আটকাবে এই মাস্কের মাধ্যমে তা নিয়ে সংশয় রয়েছে তাঁর। সংবাদ মাধ্যমেই তিনি সরাসরি জানিয়েছেন, এই মাস্ক করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কতটা সক্ষম তা পরীক্ষা করে দেখা হয়নি। তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে তিনি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা সরকার প্রদত্ত স্বাস্থ বিধি মেনেই চলছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

লাল ফিতের জট এড়াতেই পরামর্শ, 'কোভ্যাক্সিন' নিয়ে আইসিএমআর-এর নতুন বিবৃতি ...

গালওয়ানে প্রকৃতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিচ্ছে চিনা সেনার দিকে, রীতিমত কোনঠাসা অবস্থা লাল ফৌজের ...

তবে সোনায় মোড়া থাকতে ভালোভাসেন পুনের শঙ্কর। তাঁর হাতে ও গলায় রয়েছে ভারী ভারী সোনার গয়না। শুধু তিনি নন, তাঁর পরিবারের সকল সদস্যই যে সোনা পরতে ভালোবাসেন তাও নির্দ্ধিধায় জানিয়েছেন শঙ্কর। পরিবারের সদস্যরা যদি চায় তাঁদের জন্যও সোনার মাস্ক তৈরি করে দেবেন বলেও কথা দিয়েছেন।

কিম বলছেন করোনা মোকাবিলায় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে উত্তর কোরিয়া, জেনে নিন আসল ছবি কেমন
শঙ্কর জানিয়েছেন, দিন কয়েক আগে কোলাপুরের এক বাসিন্দাদে রুপোর মাস্ক পরতে দেখেছিলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভইরাল ছিল সেই ছবি। সেই রুপোর মাস্ক থেকেই অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন তিনি। তখনই তিনি চিন্তা করতে থাকেন সোনার মাস্ক কী পরা যায়। সেই চিন্তাভাবনা থেকেই সোনার মাস্ক তৈরি করে পরেছেন তিনি।