দিল্লির উপকণ্ঠে চলা কৃষক আন্দোলন নিয়ে সোমবার কিছুটা হলেও উষ্মা প্রকাশ করেছেন সুপ্রিম কোর্ট। প্রধান বিচারপতির এসএ বোবদের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চে শুনানি চলছে। সেই সময়ই ভারতের প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে  কেন্দ্রীয় সরকারকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন নতুন তিনটি কৃষি আইন স্থগিত রাখা যায় কিনা। সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে পরিস্থিতি ক্রমশই জটিল হচ্ছে।  সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছে, কেন্দ্র কৃষি আইনের ওপর আপাতত স্থিগিতাদেশ জারি করবে কিনা। আর সেটা যদি না হয় তাহলে  সুপ্রিম কোর্টই সেই পদক্ষেপ করবে। 

দিল্লি সীমানা এলাকায় চলা কৃষক আন্দোলনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে একি মামলা শুনানিতে এজাতীয় মন্তব্য করেছে সুপ্রিম কোর্ট। পাশাপাশি বলা হয়েছে, কিছু ভুল হলে আমাদের প্রত্যেকেরই দায়বদ্ধতা থাকবে। সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, তাদের দ্বারা কেউ কোনও আঘাত পাক বা রক্তক্ষরণ হোক তা চায় না। একই সঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে আইনটি প্রয়োগে স্থগিতাদেশের পর প্রতিবাদ অব্যাহত রাখা যেতে পারে। তবে কৃষকরা একই জায়গায় আন্দালোন চালিয়ে যেতে চায় না অন্যত্য যেতে চায় সে বিষয়েও তাদের সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছে। 


গত ২৬ নভেম্বর থেকে দিল্লির সীমানাবর্তীয় এলাকায় আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে দেশের কৃষকরা। তাঁদের উদ্দেশ্য ছিল দিল্লিতে প্রবেশ করে আন্দোলন চালান। কিন্তু তার আগেই দিল্লি পুলিশ তাদের রাস্তা আটকে দেয়। তারপর থেকে সীমানা এলাকায় অবস্থান বিক্ষোভ করে যাচ্ছেন তাঁরা। এদিন সুপ্রিম কোর্ট কৃষক আন্দোলন নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছে। বলা হয়েছে, কিছু মানুষ আত্মহত্যা করছে। বৃদ্ধ ও মহিলারা আন্দোলনের অংশ। সেখানে কী হচ্ছে - তা নিয়েও প্রশ্ন তুলে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, একটি আবেদনয়ও দায়ের করা হয়নি সেখানে বলা হয়েছে নতুন তিনটি আইন ভালো।