ব্যাঙ্ক অব ইংল্যান্ডের গভর্নর পদে নিযুক্ত হতে পারেন রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন। প্রসঙ্গত  ইংল্যান্ডের পরবর্তী গভর্নর পদপ্রার্থী হিসাবে যাদের নাম উঠে এসেছে তাঁদের মধ্য রঘুরাম রাজনই একেবারে যোগ্য ব্যক্তি বলে মনে করা হচ্ছে। 

প্রসঙ্গত বেক্সিট-এর জেরে রীতিমতো টালমাটাল অবস্থায় রয়েছে ইংল্যান্ড। প্রায় তিনশো বছরের পুরনো ব্যাঙ্ক অব ইংল্যান্ডের গভর্নর পদপ্রার্থী হিসাবে উঠে এসেছে  প্রায় ৩৫ জনের নাম। এঁদের সকলের মধ্যে অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতার দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন রাজন। যদিও এই প্রসঙ্গে তিনি নিজে কোনও মন্তব্য করেননি। তবে ব্রিটেনের বহু পত্র-পত্রিকায় বর্তমান গভর্নর মার্ক কারনির কাছ থেকে দায়িত্বভার বুঝে নেওয়ার দৌড়ে বাকিদের থেকে বেশ খানিকটা এগিয়ে গিয়েছেন রাজন। 

ডার্টমাউথ কলেজের অর্থনীতির অধ্যাপক তথা ব্যাঙ্ক ওব ইংল্যান্ডের প্রাক্তন পলিসি মেকার ডেভিড ব্ল্যাঞ্চফ্লাওয়ার কিন্তু রাজনের যোগ্যতাকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন। তিনি এও বলেছেন য়ে, সকল পদপ্রার্থীদের মধ্যে তিনিই সবথেকে যোগ্য পদপ্রার্থী। পর্যবেক্ষকদের মতে, ব্যাঙ্ক অব ইংল্যান্ডের গভর্নর হতে গেলে যে যে যোগ্যতা থাকা প্রয়োজন, তাঁর সবই রাজনের রয়েছে। প্রসঙ্গত, ব্রেক্সিট পর্বে ব্রিটেনের অর্থনীতি নিয়ে বিভিন্ন সাক্ষাতকারে রাজন মন্তব্য করেছিলেন, চরম হতাশা থেকেই ব্রিটেনের মানুষ ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেড়িয়ে আসতে চায়। কিন্তু তাঁর কথায়, ব্রিটেনের অর্থনীতিকে পোক্ত করতে তাকে আন্তর্জাতিক অর্থনীতির সঙ্গে যেভাবাই হোক যুক্ত থাকতে হবে। 

সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে কড়া পদক্ষেপ নিতে হবে পাকিস্তানকেই, জানালেন মোদী

প্রসঙ্গত ভারতীয় শীর্ষব্যাঙ্কের গভর্নর থাকার সময়ে কিন্তুু একাধিকবার সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। কারণ অর্থনীতির সঙ্গে সম্পর্ক নেই এমন অনেক বিষয়ে মন্তব্য করে সরকারের বেশকিছু মহলে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে।