করোনাভাইরাস আর লকডাউনের পরিস্থিতি মোকাবিলায়  দরিদ্রদ্রে সাহায্য করতে লাগবে ৬৫ হাজার কোটি টাকা। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধির সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে এমনই জানালেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ  রঘুরাম রাজন। তিনি আরও বলেন ভারতের পক্ষে এই আর্থ খুব একটা বেশি নয়। কারণ ভারতের মোট জিডিপি হয়  ২০০ লক্ষ কোটি টাকা। ৬৫ হাজার কোটি টাকায় দরিদ্র ভারতীয়দের উপযুক্ত সাহাস্য প্রদান করা যাবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। 

রাহুল গান্ধির প্রশ্ন ছিল অর্থনৈতিক মন্দা কাটাতে কী ভাবে লকডাউন পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত। তারই উত্তরে রঘুরাম রাজন  বলেন লকডাউন করা খুবই সোজা। কিন্তু দীর্ঘদিন লকডাউন অর্থনীতির পক্ষে খুব একটা সুখকর নয়। কর্মক্ষেত্র থেকে কর্মক্ষেত্রে যাওয়া সর্বত্রই শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। কিন্তু যারা বাস অথবা ট্রেনের মত পাব্লিক ট্রান্সপোর্ট ব্যবহার করেন তাদের ক্ষেত্রে এই নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখা খুবই কঠিন। সব কথা মাথায় রেখেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিৎ। দুজনের কথা  প্রসঙ্গেই উঠে আসে নমুনা পরীক্ষার প্রসঙ্গ। করোনা মোকাবিলায় রাহুল গান্ধি প্রথম থেকেই নমুনা পরীক্ষার ওপর জোর দিয়ে আসছিলেন। সেই প্রসঙ্গেই রঘুরাম রাজন বলেন বর্তমানে প্রচুর পরিমাণে নমুনা পরীক্ষা করিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু ভারতের জনসংখ্যা অনুযায়ী প্রতিদিন ২৫-৩০ হাজার মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা প্রয়োজন। কিন্তু তার ধারে কাছেও পৌঁছাতে পারেনি ভারত। 

ওয়াইনাডের সাংসদ রাহুল গান্ধি অর্থনীতিবিদ রঘুরাম রাজনকে জিজ্ঞাসা করেন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে বর্তমান সময় ও আগামী ৩-৪ মাস আমাদের কী ভাবে লড়াই করা উচিৎ। তার উত্তরে রাজন বলেন, প্রথম ও প্রধান কর্তব্যই হল দেশের মানুষকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখান। দরিদ্র ও পিছিয়ে পড়া মানুষের কাছে খাবার পৌঁছে দেওয়া। রেশন কার্ড বা আধার কার্ড না দেখে সকলের কাছে খাবার পৌঁছে দেওয়ার প্রস্তাব আগেই অমর্ত্য সেন, অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় ও তিনি কেন্দ্রকে দিয়েছিলেন বলেও মন্তব্য করেন। করোনা মহামারী একটি নজীরবিহীন ঘটনা। এই পরিস্থিত মোকাবিলায় করতে গেলে নিয়ম ভেঙে অনেক সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন। 

রাহুল গান্ধির প্রশ্ন ছিল করোনাভাইরাসের সংক্রমণের  কারণে বিশ্ব রাজনীতি ও অর্থনীতিতে অনেক পরিবর্তন আসবে। তাতে কী দেশের অর্থনীতি ও বাণিজ্য এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কোনও সুযোগ পাবে ভারত। তার উত্তর রাজন বলেন, ভারতকে শিল্প ও সরবরাহের জন্য সুশৃঙ্খল পথ খুঁজে বার করতে হবে। এটি কোনও একটি দেশের বিষয় নয়। বিশ্বব্যাপী একটি প্রক্রিয়া। 

অর্থনীতিবিদ রঘুরাম রাজনের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে রাহুল বলেন করোনা মোকাবিলায় দক্ষিণের রাজ্যগুলি যথেষ্ট ভালো কাজ করছে। 

>