কৃষক আন্দোলন আর চিন ইস্যুতে রাহুল গান্ধীকে (Rahul Gandhi) বেশ কয়েকটি প্রশ্ন করেছিলেন বিজেপি প্রধান জেপি নাড্ডা(JP Nadda)। মঙ্গলবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তারই উত্তর দিলেন কংগ্রেস (Congress)  নেতা রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন যখন কৃষকদের ঋণ মকুবের কথা উঠেছিল তখন নাড্ডাজি কোথায় ছিলেন? কিন্তু তিনি আগেও যেমন কৃষকদের সঙ্গে ছিলেন আগামী দিনে তেমনই থাকবেন বলেও জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি বলেন গোটা দেশ জানে সত্যিটা কী? কে কৃষকদের বিভ্রান্ত করছে তাও কৃষকরা জানে বলেও দাবি করেন তিনি। 

কোভ্যাক্সিন নিয়ে সতর্ক করল ভারত বায়োটেক, টিকা কর্মসূচিশুরুর পর সামনে এল ফ্যাক্ট শিট ...

'ছুটি কাটিয়ে ফিরেই' নাড্ডার প্রশ্নের সামনে রাহুল গান্ধী, চিন আর কৃষক আন্দোলন নিয়ে প্রশ্ন ...
এদিন রাহুল গান্ধী কিছুটা সুর চড়িয়েই বলেন তিনি একজন সৎ মানুষ। তাই বিজেপি চাইলেই তাঁকে ছুঁতে পারবে না। গুলি করে হত্যা করতে পারে। কিন্তু অন্য কোনওভাবে তাঁকে সমস্যায় ফেলতে পারবে না বলেও সাংবাদিক সম্মেলনে দাবি করেন রাহুল। একই সঙ্গে তিনি বলেন, এপিএমসি সিস্টেমের মাধ্যমে ধান গম কেনা বেচা হচ্ছে। এটা কিন্তু কৃষকদের কাছে আক্রমণ নয়। মধ্যবিত্তি ও যুবকরা যে কাজ হারাচ্ছেন সেটা যথেষ্ট উদ্বেগের বলেও জানিয়েছেন তিনি। কৃষি আইন নিয়ে যেহেতু সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলছে তাই বিষয়টি নিয়ে তিনি এর থেকে আর বেশি কথা বলবেন না বলেও জানিয়েছেন। পাশাপাশি রাহুল গান্ধী তিনি বলেন তিনি সর্বদাই বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করবেন।প্রয়োজনে তিনি একাই লড়াই চালিয়ে যাবেন বলেও জানিয়েছেন। 

একই সঙ্গে চিন প্রসঙ্গও উত্থাপন করেন ওয়াইনাডের কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক নীতি নিয়ে চিনের একটি সুস্পষ্ট অবস্থান রয়েছে। গোটা পরিস্থিতি বদল করার জন্য তারা চেষ্টা চালাচ্ছে। যা ভারতের নেই। লাদার আর ডোকলাম- চিন দুবার পরীক্ষা করেছে অবস্থান পরিবর্তেনের। সামরিক ও অর্থনৈতিক- কোনওভাবেই ভারত এখনও পর্যন্ত সুস্পষ্ট বার্তা দিতে পারেনি চিনকে। আশঙ্কা বাড়িয়ে রাহুল গান্ধী বলেন তিন হাতে হাত গুটিয়েরেখে বসে থাকবে না। তাদের নীতি কার্যকর করার চেষ্টা চালিয়ে যাবে। আর যেদিন সেটা ঘটবে সেদিন সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হব আমরা। 

এক সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও নিশানা করেন রাহুল গান্ধী। আর সেই প্রসঙ্গে তিনি তুলে আনেন মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রচার। যেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন আব কি বার ট্রাম্প সরকার। রাহুল গান্ধীর কথায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এজাতীয় মন্তব্য করা থেকে নিজেকে বিরত রাখা প্রয়োজন। কারণ এটা মার্কিন জনগণের বিষয় এটা ভারতের কোনও বিষয় নয় বলেও মন্তব্য করেন রাহুল গান্ধী।