মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলনে আগেই কংগ্রেস (Congress) নেতা রাহুল গান্ধীকে (Rahul Gandhi) অস্বস্তির মধ্যে ফেলে দিলেন বিজেপি (BJP) প্রধান জেপি নাড্ডা (J P Nadda)। এদিন তিনি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে রাহুল গান্ধীর কাছে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন রাখেন। আর সোশ্যাল মিডিয়াতেই আশা প্রকাশ করেছেন রাহুল তাঁর প্রশ্নের উত্তর দেবেন। জেপি নাড্ডা মূলত চিন আর দিল্লির উপকণ্ঠে একমাসেরও বেশি সময় ধরে চলা কৃষক আন্দোন নিয়ে প্রশ্ন করেন রাহুল গান্ধীকে। একই সঙ্গে রাহুল গান্ধীর বিদেশে ছুটি কাটানো নিয়েও কটাক্ষ করেছেন জেপি নাড্ডা। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, রাহুল গান্ধী তাঁর মাসিক ছুটি কাটিয়ে বিদেশ দেশে ফিরেছেন। তিনি তাঁকে কতগুলি প্রশ্ন করছেন। আশা করছেন আজ সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি তারঁ প্রশ্নের উত্তর পাবেন। 

 

 

জেপি নাড্ডা রাহুল গান্ধীর উদ্দেশ্যে জিজ্ঞাসা করেছেন, কখন রাহুল গান্ধী ও তাঁর দল কংগ্রেস চিন ইস্যুতে মিথ্যা কথা বলা বন্ধ করবে। তিনি আরও বলেন রাহুল গান্ধী কী কখনও অস্বীকার করতে পারবেন অরুণাচল প্রদেশ সংলগ্ন এলাকায় পণ্ডিত নেহেরু চিনকে কয়েক হাজার কিলোমিটার জমি উপহার হিসেবে তুলে দিয়েছেন। কংগ্রেস কেন বারবার চিনের কাছে আত্মসমর্পণ করে তাও জানতে চেয়েছেন জেপি নাড্ডা। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করেছেন কংগ্রেস বারবার লাদাখে চিনা আগ্রাসন নিয়ে বিজেপিকে নিশানা করে। তারই প্ররিপ্রেক্ষিতে নাড্ডা কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে গিয়ে আরও একবার চিন প্রসঙ্গ উত্থাপন করেছেন। অন্যদিকে বিজেপিস নেতা ২০০৮ সালে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে কংগ্রেসের চুক্তি নিয়েও কটাক্ষ করেন। বিজেপি অভিযোগ সেই চুক্তির মাধ্যমে কংগ্রেস আরও একবার চিনার পক্ষ নিয়ে কাজ করতে চাইছে। পাশাপাশি ইউপিএ সরকার রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনের জন্য চিনা কমিউনিস্টি পার্টির থেকে অর্থ সাহায্য নিয়েছিল বলেও অভিযোগ করে বিজেপি। 

 


অন্য একটি টুইট বার্তা জেপি নাড্ডা দিল্লির বুকে চলা কৃষক আন্দোলন নিয়ে নিশানা করেছেন রাহুল গান্ধীকে। তিনি বলেন কংগ্রেস আন্দোলনকারী কৃষকদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। আর সেই সূত্র ধরেই তিনি জানতে চেয়েছেন কবে কংগ্রেস ভারতীয় কৃষকদের উস্কানি দেওয়া বন্ধ করবে। দীর্ঘ দিন ধরেই কংগ্রেস দেশ শাসন করেছে। কিন্তু কৃষকদের উন্নতির কথা কখনও ভাবেনি। ইউপিএ সরকার স্বামীনাথন কমিশনের রিপোর্ট আটকে রেখেছিল বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বিরোধীদের কৃষক কিসের ভিত্তিতে কৃষকদের থেকে সহানুভিতি কুড়াতে চাইছে তাও জানতে চেয়েছেন জেপি নাড্ডা। 

কোভ্যাক্সিন নিয়ে সতর্ক করল ভারত বায়োটেক, টিকা কর্মসূচিশুরুর পর সামনে এল ফ্যাক্ট শিট ...

'পরাক্রম দিবস' হিসেবে পালন করা হবে নেতাজির জন্মদিন, ২৩ জানুয়ারি কলকাতায় আসতে পারেন প্রধানমন্ত্রী মোদ...
বিজেপি অভিযোগ নতুন তিনটি কৃষি আইন নিয়ে মিথ্যা প্রচার চালাচ্ছে কংগ্রেস। কংগ্রেস বারবার বলছে এমএসপি ও মান্ডি প্রথা পুরোপুরি ভেঙে দেওয়া হবে। বিজেপি দাবি এমএসপি যেমন থাকবে তেমনই মান্ডি প্রথাও থাকবে। নতুন তিনটি কৃষি আইনের মাধ্যমে ভারতীয় কৃষি ক্ষেত্রে সংঙ্কার করা হবে। আর্থিকভাবে উপকৃত হবেন কৃষকরা।