দেশ যদি কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবিলায় তাদের কথা শোনে, তবে ইন্ডিয়ার রূপান্তরিত হবে ইতালি-তে। শুক্রবার করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের পদক্ষেপের সমালোচনা করায় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী এবং প্রিয়াঙ্কার গান্ধী বঢড়াকে পাল্টা আক্রমণ করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তাঁর সাফ কথা 'ভারতকে ভারতের মতো থাকতে দিন'।

বর্তমানে ইতালি-তে কোভিড-১৯ মহামারি প্রায় নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। সেখানকার বেশ কয়েকজন ডাক্তার তো বলছেন তাদের দেশ করোনামুক্তই বলা যায়। কিন্তু, ফেব্রুয়ারির শেষে ও মার্চ মাসে বিশ্বের করোনা মহামারির এপিসেন্টার হয়ে উঠেছিল দক্ষিণ ইতালির সেই দেশ। ইউরোপে প্রথম এই দেশেই আঘাত হেনেছিল করোনভাইরাস, যার জন্য একেবারেই প্রস্তুত ছিল না সেই দেশ। রীতিমতো মড়ক লেগেছিল সেই সময়। সেই বিষয়টি নিয়েই গান্ধী পরিবারের ভাইবোনকে খোঁচা মারলেন যোগী।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুসারে, ইতালিতে এখনও পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা ২.৩৩ লক্ষ এবং মৃত্য়ু হয়েছে ৩৩,০০০ এরও বেশি মানুষের। অন্যদিকে, ভারতে এখনও পর্যন্ত ২.২৬ লক্ষ মানুষ এই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এবং মৃত্য়ু হয়েছে ৬,৩৪৮ জনের। এই বৈপরীত্যের অন্যতম কারণ অবশ্যই ভারতের উন্নত মানের জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থা। তবে গবেষকরা জানিয়েছেন, ইতালিতে যে স্ট্রেইনের ভাইরাস দাপট দেখিয়েছে তা অনেক বেশি আগ্রাসি, ভারতের করোনার যে স্ট্রেইন রয়েছে, তা অনেকটাই নিরীহ।

গত ২৪ মার্চ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশে ২১ দিনের লকডাউন জারি করেছিলেন। তারপর আরও তিন দফায় লকডাউন জারি হয়েছে। চলেছে দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে। কিন্তু, তাতে প্রত্যাশা মতো করোনার দাপট কমেনি। প্রথম দিকে মুখে কুলুপ এঁটে থাকলেও সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা কেন্দ্রীয় সরকার এবং উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধেও আঙুল তুলতে শুরু করেছেন।

রাহুল-প্রিয়াঙ্কার পরামর্শ-ও কিন্তু বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে মেনেছে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্য ও জেলা প্রশাসনের হাতে রেড, গ্রিন, অরেঞ্জ জোন নির্দিষ্ট করার যে নির্দেশ লকডাউন ৪-এ এসেছিল, সেই প্রস্তাব আগেই দিয়েছিলেন রাহুল। আবার রাহুল গান্ধী সরাসরি অর্থনীতিতে নগদ অর্থায়নের যে প্রস্তাব দিয়েছিলেন, তাই নিয়েও ভাবনা চিন্তা চলছে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকে, সম্প্রতি সেই খবরও এসেছে।