নক্কারজনক, লজ্জাজনক কোনও বিশেষণেই এই ঘটনাকে প্রকাশ করা সম্ভব নয়। বলা যেতে পারে মনুষ্যত্বের মৃত্য়ু ঘটল। ছেলের বয়স পঞ্চাশ বছর। মায়ের বয়স ৭৫। অভিযোগ হোয়াটসঅ্যাপে বৃদ্ধা মায়ের নগ্ন ছবি ছড়িয়ে দিয়েছে ছেলে। উদ্দেশ্য পৈতৃক সম্পত্তির দখলের জন্য তাঁকে ব্ল্যাকমেল করা। এই কুৎসিত ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের কোটা জেলায়। অভিযুক্ত দীপক তিওয়ারি-কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, দাদাবাড়ি থানার অন্তর্গত শিবপুরা এলাকায় দীপকদের পৈত্রিক বাড়ি। দিন ২০ আগে দীপকের বাবা মারা যাওয়ার পর থেকেই সম্পত্তি নিয়ে মায়ের সঙ্গে বিরোধে জড়িয়েছিল দীপক। তার মা-কে তাদের পৈতৃক বাড়ির মালিকানা সংক্রান্ত কাগজপত্র হস্তান্তর করার জন্য চাপ দিচ্ছিল। কিন্তু, সেই কাগজ হাতছাড়া হলে সেই বাড়িতে তাঁর আর জায়গা নাও হতে পারে ভয়ে তার মা সেই নথিপত্র দেননি।

পুলিশের কাছে বৃদ্ধা অভিযোগ করেছেন, গত ১৩ মে তারিখে তিনি যখন তাঁর প্রয়াত স্বামীর উদ্দেশ্যে সস্তয়ন করছিলেন, সেই সময় অভিযুক্ত দীপক এসে তার গায়ে কিছু একটা রাসায়নিক স্প্রে করে। তারপর থেকেই তাঁর গোটা গায়ে চুলকানি শুরু হয়েছিল। বাধ্য হয়ে তিনি তখনই স্নান করতে ছুটেছিলেন বাথরুমে। এভাবে মাকে অপমান করার চেষ্টা করেছিল বলে জানিয়েছে দীপক।

অভিযোগ সেই সময়ই অভিযুক্ত দীপক তার মায়ের নগ্ন শরীরে ছবি তুলে নিয়েছিলেন এবং পরে তা তাদের আত্মীস্বজনদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে শেয়ার করেন। বৃদ্ধা মহিলার আত্মীয়রা তার পরেরদিন ঘটনাটি সম্পর্কে জানায়। তারপরই ওই মহিলা পুলিশে গিয়ে নিজের ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ দীপককে গ্রেফতার করেছে। এদিন দীপককে অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (এসিজেএম) আদালতে তোলা হয়। তাকে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

দীপকের বিরপদ্ধে এক মহিলার সম্ভ্রম লুন্ঠন এবং ব্ল্যাকমেইল করা সহ ভারতীয় দণ্ডবিধির বেশ কয়েকটি ধারায় মামলা করা হয়েছে।