পরীক্ষায় ভালো নম্বর পেতে হলে নাবালিকা ছাত্রীদের পুরণ করতে হবে শিক্ষকের যৌন চাহিদা- এটাই ছিল শর্ত।  দিনের পর দিন এভাবে স্কুল পড়ুয়া ছাত্রীদের নির্যাতন করে চলছিল এক শিক্ষক। কিন্তু ছাত্রীরা যৌথভাবে প্রতিহত করে শিক্ষককের অমানবিক আচরণ। তারই জেরে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত শিক্ষককে। বর্তমানে জেল হেফাজতে রয়েছে অভিযুক্ত শিক্ষক। 

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানান হয়েছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে পড়ুয়ারা প্রথম স্কুল পরিদর্শকের কাছে অভিযোগ জানিয়েছিল। তারা বলেছিলে অভিযুক্ত শিক্ষক তাদের নানাভাবে হেনস্থা করে। শিক্ষক তাদেরকে শারীরিক যোগাযোগ স্থাপনের জন্য জোর দেয়।  তাতে সম্মত না হলে তাদের ফেল করিয়ে দেওয়া হুমকি দেয়। পরবর্তীকালে তারা স্থানীয় ব্লক এডুকেশন অফিসারের দ্বারস্থ হয়। তারপরই তদন্ত শুরু হয় শিক্ষকের বিরুদ্ধে। অবশেষ গত ১৮ ডিসেম্বর ৪৫ বছরের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক প্রভাসকে গ্রেফতার করে পুলিশ। স্থানীয় আদালত আগামী ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত তাকে জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। 

রাজস্থান প্রশাসনের তরফে জানান হয়েছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের তোলা যৌন হেনস্থার অভিযোগকে রীতিমত গুরুত্ব দিয়ে দেখে শিক্ষা বিভাগ। অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে পকসো ও এসসি এসটি আইনেই মামলা দায়ের করা হয়। যে স্কুল পরিদর্শকের সামনে ছাত্রীরা প্রথম মুথ খুলে ছিলেন তিনি বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েছেন বলেও জানান হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের তরফ থেকে।