২১ মে। ২৮ বছর আগে এই দিনটিতেই ভারতীয় গণতন্ত্রের উপর সন্ত্রাসের কালো ছায়া নেমে এসেছিল। তামিলনাড়ুতে ভোটের প্রচারে গিয়ে এলটিটিই জঙ্গিদের আত্মঘাতি হামলায় প্রাণ গিয়েছিল ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর। এদিন সারা দেশেই বিভিন্ন জায়গায় তাঁকে স্মরণ করা হচ্ছে। শ্রদ্ধা জানালেন তাঁর পুত্র ও কন্য়া রাহুল গান্ধী ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভডরা।  

সোশ্যাল মিডিয়ায় বাবার সম্পর্কে লিখতে গিয়ে বেশ আবেপ্রবণ হয়ে পড়েন কংগ্রেস সভাপতি। তিনি জানান, তাঁর বাবা ছিলেন, ভদ্র, স্নেহপ্রবণ, দয়ালু। তাঁর কাছ থেকেই রাহুল সকলকে ভালোবাসার, শ্রদ্ধা করার শিক্ষা পেয়েছেন হলেও জানান। রাজীবই তাঁকে শিখিয়েছিলেন কাউকে কখনও ঘৃণা না করতে, ক্ষমাশীল হতে। রাহুল জানান, প্রতি মুহূর্তে তিনি তাঁর বাবার অভাববোধ করেন।

এর সঙ্গে তিনি তাঁর বাবার এবং বাবার স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানানোর একটি ছবি দিয়েছেন।  প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও একটি পুরনো ছবি পোস্ট করেছেন। ছবিতে ছোট্ট প্রিয়াঙ্কা তাঁর বাবা রাদীব গান্ধীকে জড়িয়ে ধরে আছেন। সেই ছবির সঙ্গে তিনি হরিবংশ রাই বচ্চনের বিখ্যাত 'অগ্নিপথ' কবিতাটি তুলে দিয়েছেন। সঙ্গে লিখেছেন, বাবা চিরকালই তাঁর 'হিরো' থাকবেন।

লোকসভা নির্বাচনের প্রচার পর্বে বেশ কয়েকবার নরেন্দ্র মোদী-সহ বিজেপি নেতারা নিশানা করেছিলেন প্রয়াত প্রধানমন্ত্রীকে। যুদ্ধ জাহাজকে ব্যক্তিগত ট্যক্সির মতো ব্যবহারের অভিযোগ তোলা হয়। বাবারকে প্রেম ও দয়ার প্রতীক হিসেবে তুলে ধরে বকলমে বিজেপির সেই রাজনীতির বাব দিলেন রাহুল বলে মনে রছে রাদনৈতিক মহল।

সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টের আগে এদিন সকালে নয়া দিল্লির বীরভূমি-তে ইউপিএ চেয়ারপার্সন তথা রাজীব পত্নী সনিয়া গান্ধী, রাহুল ও প্রিয়াঙ্কা তিনজনে পুস্পস্তবক ও মালা দিয়ে প্রয়াত প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। উপস্থিত ছিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর স্বামী রবার্ট ভডরাও। তিনিও রাজীব গান্ধীকে শ্রদ্ধা জানান।