তার পিছনে পড়ে রয়েছে গুজরাত পুলিশ। শিশুদের জোর করে আশ্রমের জন্য চাঁদা তোলানো ছাড়াও অপহরণের মতো গুরুতর অভিযোগ রয়েছে স্বঘোষিত ধর্মগুরু নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে। এবার সেই কিনা হতে চলেছেন একটি দেশের প্রধান । যেখানে ধর্ষণে অভিযুক্ত ধর্মগুরু তৈরি করবেন সম্পূর্ণ হিন্দু রাষ্ট্র। গোয়েন্দারা বলছেন, ইতিমধ্যেই তার জন্য একটি দ্বীপ কিনে ফেলেছেন নিত্যানন্দ। 

২০১৮ তেই প্রথম নজরে আসে বিষয়টা। দীর্ঘদিন খবরে না থাকার পর জানা যায়, গোপনে দ্বীপ কিনে দেশ গড়ার স্বপ্ন দেখছেন দক্ষিণের স্বঘোষিত ধর্মগুরু নিত্যানন্দ। ইতিমধ্য়েই দেশের নামও ঠিক করে ফেলেছেন তিনি। কৈলাস নামের হিন্দু রাষ্ট্র গড়ছেন নিত্যানন্দ। সুদূর আমেরিকা থেকে শুর হয়েছে চাঁদা তোলার কাজ। সাইবার বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, Kailaasa.org নামে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেছে নিত্যানন্দের সহযোগীরা। আইপি অ্যাড্রেস বলছে, ২০১৮ সালের ২১ অক্টোবর হিন্দু রাষ্ট্র গড়ার জন্য় চাঁদা তোলার কাজ শুরু করেছে নিত্যানন্দ। শেষ ২০১৯ সালের ১০ অক্টোবরে শেষবার আপডেট করা হয়েছে এই সাইট। আমেরিকার ডালাসের পানামায় এই সাইটের আইপি অ্যাড্রেস দেখা গেছে।

এই ওয়েব সাইটে বলা হয়েছে, নিত্যানন্দের আহ্ববানে নতুন দেশ গড়া হচ্ছে। যেখানে দেশের প্রধানমন্ত্রী, ছাড়াও রাষ্ট্রের সংবিধান ও নিজস্ব পতাকা থাকবে।  যে হিন্দুরা সারা বিশ্বে নিজের ধর্ম পালন করতে পারছেন না তাদের এই রাষ্ট্রে আসতে আহ্বান জানানো হয়েছে। সংবাদ সংস্থা আইএএনএস এই খবর প্রকাশ করেছে। তবে কোথায় এই দেশ গড়া হচ্ছে,সেই খবর তুলে ধরতে পারেনি কেউ। তবে জানা গেছে, নিজের দেশের জাতীয় পতাকাকে 'ঋষভ ধ্বজ' নাম দিয়েছেন নিত্যানন্দ। ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, এই পতাকার মধ্যে শিবের বাহন নন্দি ছাড়াও নিজের ছবি রাখবেন নিত্য়ানন্দ। ইতিমধ্যেই কৈলাসে নাগরিকত্ব পেতে সবাইকে চাঁদা দেওয়ার কথা বলেছেন এই ধর্মগুরু। 

এখানেই থেমে থাকেননি স্বঘোষিত এই ধর্মগুরু। নিজের দেশের জন্য রিজার্ভ ব্য়াঙ্কের পাশাপাশি ধার্মিক অর্থনীতির কথা বলেছেন নিত্যানন্দ। ওয়েবসাইট বলছে, কৈলাস-এর পাসপোর্ট  পেলে ১৪ লোকে বিনামূল্যে ঘোরার পাসপোর্ট পাবেন আবেদনকারীরা। ভগবান শিবের আশীর্বাদের ফলই এই পাসপোর্ট বলে জানিয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যেই নিত্যানন্দের সাকরেদদের এই কাজকর্ম নজরে পড়েছে গোয়েন্দাদের। জানা গেছে, শীঘ্রই স্বঘোষিত ধর্মগুরুর বিষয়ে তদন্ত শুরু করবেন তাঁরা।