জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ করার সিদ্ধান্তের পর উপত্যকার পরিস্থিতি কার্যত থমথমে হয়ে ছিল। সারা দেশের মানুষ আশঙ্কা করেছিল যে, জম্মু ও কাশ্মীরে হয়ত এবার যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হবে। কিন্তু সেরকম কোনও পরিস্থিতি তৈরি তো হয়নি বরং উল্টে কোনও যুদ্ধের পরিস্থিতিও তৈরি হয়নি বলে খবর। 

জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে, গত ছয় দিন ধরে কাশ্মীরে কোনও গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেনি বলে জানা গিয়েছে। সেইসঙ্গে কাশ্মীর পুলিশের তরফে অনুরোধ জানানো হয়েছে, তারা যেন কোনওরকম গুজবে কান না দেন। জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষ সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় রেখেন এবং যথেষ্ট সহযোগীতাও করছেন  বলে খবর। 

 

পাশাপাশি শ্রীনগরে একাধিক এলাকায় ট্রাফিকের পরিস্থিতি খুবই স্বাভাবিক। এদিন জম্মু ও কাশ্মীরে ঈদের বাজার ছিল সরগরম। ট্রাফিকের অবস্থাও ছিল অত্যন্ত স্বাভাবিক।  তবে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে রাজ্যজুড়ে বিক্ষিপ্ত প্রতিবাদের ঘটনা ঘটেছে। তবে একাধিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছিল শ্রীনগরে প্রায় দশ হাজার মানুষ বিক্ষোভ আন্দোলনে অংশ নেওয়ার খবর প্রকাশ্যে এলেও সে খবর ভুয়ো বলে দাবি করা হয়েছে স্বরাষ্ট্র দফতরের তরফ থেকে।