দেশের অর্থনীতির হাল যে অতি খারাপ, তা এতদিনে সবাই জেনে ফেলেছেন। ২০১৮ সালের নভেম্বরের পর ফের প্রতিদিন হুহু করে পড়ছে ভারতীয় মুদ্রার দাম। সোমবার, ২৬ অগাস্ট একদিনেই ভারতীয় মুদ্রার দাম কমেছে ৩৬ পয়সা। যার ফলে বাজার বন্ধের সময় এদিন ভারতীয় মুদ্রার দাম দাঁড়ায় মার্কিন ডলার প্রতি ৭২.০২। গত ১৪ নভেম্বরের পর ভারতীয় মুদ্রার দাম বাজার বন্ধের সময় এতটা কম আর হয়নি।

তবে শুধু ভারতীয় মুদ্রাই নয়, এদিন বাজার খোলার পর মার্কিন ডলারের নিরিখে ধস নামে তুর্কি লিরা, চিনা ইউয়ান এবং অস্ট্রেলিয় ডলারেরও। সপ্তাহান্তে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চিনের মধ্যে বানিজ্য যুদ্ধ নিয়ে উত্তেজনা বাড়াতেই আচমকা এই ধস নেমেছে বলে জানিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা। এমনকী কমেছে, ইউরো ও  পাউন্ডের মূল্যও। অপরদিকে, ০.৩১ শতাংশ বেড়ে মার্কিন ডলারের সূচক দাঁড়িয়েছে ৯৭.৯৪-এ।
 
তবে বিশ্বের সবচেয়ে বড় দুই অর্থনীতি আমেরিকা ও চিন, সারা বিশ্বের অর্থনীতিতে এই মারাত্মক প্রভাব দেখে নিজেদের কিছুটা হলেও সংযত করার ইঙ্গিত দিয়েছে। সোমবার দুই দেশই জানিয়েছে তারা নিজেদের সমস্যার বিষয়গুলি ঠান্ডা মাথায় বসে আলোচনার মাধ্যমেই সমাধান করতে চায়। চিনের ভাইস প্রিমিয়ার জানিয়েছেন তার দেশ বরাবরই আমেরিকার সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমেই বানিজ্য সংক্রান্ত দ্বন্ব মেটাতে চায়। আর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য শিগগিরই দুই অর্থনৈতিক সুপার পাওয়ার এই নিয়ে আলোচনা শুরু করবে।

এই দুই মন্তব্যের প্রভাব এদিনই শেয়ার বাজারে দেখা গিয়েছে। ভারতীয় মুদ্রার দাম কমলেও এদিন বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জের সূচক ৭৯২.৯৬ পয়েন্ট বেড়ে পৌঁছায় ৩৭,৪৯৪.১২-এ। সবচেয়ে বেশি লাভ হয়েছে ব্যাঙ্কিং সেক্টরের স্টকের।