বৃদ্ধা কৃষক পরিবারের মহিলাকে '১০০ টাকায় উপলব্ধ মহিলা' অপমান করায় আইনি নোটিশ পেলেন বলি অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। শুক্রবার এনডিএ-র প্রাক্তন সঙ্গী শিরোমণি অকালি দলের নেতা মনজিন্দর সিং সিরসা জানিয়েছেন, পঞ্জাবের ওই প্রবীণা কৃষক মহিলা সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য করার জন্য কঙ্গনা রানাওয়াত-কে তাদের দল আইনি নোটিশ পাঠিয়েছে।

শুধু ওই মহিলাকে অপমান করাই নয়, একাধিক টুইটে কঙ্গনা কৃষকদের আন্দোলনকে 'দেশবিরোধী' তকমাও দিয়েছেন, যা ভালোভাবে নেয়নি অকালি দল। এই অসংবেদনশীল সমস্ত মন্তব্যের জন্য বলিউডের কুইন-কে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে বলে দাবি করেছে অকালি দল। শুধু পঞ্জাবের এই রাজনৈতিক দলই নয়, পঞ্জাবের এক আইনজীবীও ওই আপত্তিজনক পোস্টের জন্য কঙ্গনাকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন।

বৃহস্পতিবারেই ওই মহিলার ছবি টুইট করে কঙ্গনা দাবি করেছিলেন ডিসেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত দিল্লির শাহীনবাগে যে নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইন বিরোধী আন্দোলন হয়েছিল, সেখানেও ওই বয়োজ্যেষ্ঠ মহিলাকে প্রতিবাদে সামিল হতে দেখা গিয়েছিল। ১০০ টাকা দিলেই তিনি প্রতিবাদ করতে চলে আসেন বলে দাবি করে বিতর্ক বাধিয়েছিলেন তিনি। নেটিজেনকরা তাঁর ভুল ধরিয়ে দেওয়ার পরই টুইটটি মুছে ফেলেছিলেন কঙ্গনা। কিন্তু তাতে সোশ্যাল মিডিয়া তাঁকে মুক্তি দেয়নি।

কৃষক নেতাদের অনেকে এবং বিভিন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ তীব্র সমালোচনা করেছিলেন কঙ্গনার। পাঞ্জাবি গায়ক-অভিনেতা দিলজিৎ দোসানজ-এর সঙ্গে তো রীতিমতো টুইট যুদ্ধ শুরু হয়ে যায়। দিলজিৎ অনেক সংযত ও শালীন ভাবে সমালোচনা করলেও, একেবারে ব্যক্তিগত স্তরে নেমে এসে কুৎসিত আক্রমণ করেছিলেন কঙ্গনা। তিনি কৃষকদের সঙ্গে আছেন। কৃষিক্ষেত্রে অনেক দান করেছেন। কৃষকদের শোষণ ও তাদের সমস্যা সম্পর্কে সোচ্চার ছিলেন। এমনকী তাঁর জন্যই শেষ পর্যন্ত 'বৈপ্লবিক কৃষি বিল' এসেছিল - এমন সব অবান্তর যুক্তি দিয়ে অবস্থা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন।