কাশ্মীরে শুধু নিরাপত্তা বাহিনীর সংখ্যা বাড়ানো নয়, এবার সরাসরি উপত্যকার বাসিন্দাদের সতর্ক করার পথও বেছে নিল ভারতীয় সেনাবাহিনী। রীতিমতো তথ্য তুলে ধরে, কাশ্মীরী মায়েদের কাছে তাঁদের সন্তানদের রক্ষা করার আবেদন রাখলেন ১৫ কর্পস-এর কমান্ডিং অফিসার লেফট্যানেন্ট জেনারেল কেজেএস ধিলোঁ। অমরনাথ যাত্রার পথে অস্ত্র ভাড়ারের সন্ধান পাওয়ার পরই এল এই সতর্ক বার্তা।

লেফট্যানেন্ট জেনারেল ধিলোঁ জানিয়েছেন কাশ্মীরি সন্ত্রাসবাদীদের সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য বিশ্লেষণ করা হয়েছে সেনার তরফে। তাতে দেখা যাচ্ছে, পাথর ছোড়া থেকেই ধীরে ধীরে জঙ্গিবাদের দিকে পা বাড়ায় কাশ্মীরি যুবরা। কাশ্মীরি জঙ্গিদের ৮৩ শতাংশেরই আগে সেনাকে লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করার ইতিহাস রয়েছে। তাই সন্তানরা সেই পথে পা বাড়ানো থেকে রক্ষা করার জন্য মায়েদের কাছে আবেদন করা হয়েছে।

কারণ, তথ্য বিশ্লেষণে আরও দেখা গিয়েছে, এই পাথর ছোড়া আন্দোলনকারী থেকে জঙ্গি হয়ে ওঠা যুবদের জীবন কিন্তু হয় অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত। সেনা তথ্য বলছে ৬৪ শতাংশেরই মাত্র ১ বছরের মধ্যেই মৃত্যু হয়। কাজেই লেফট্যানেন্ট জেনারেল ধিলোঁর আবেদন কাশ্মীরি মায়েরা তাঁদের সন্তানদের এই পাথর ছোড়া থেকে বিরত রাখুন। এই পথ আসলে তাঁদের কোল খালি হয়ে যাওয়ার পথ।

কাশ্মীরের পরিবেশ অশান্ত করতে উঠে পড়ে লেগেছে পাকিস্তানিরা, এমনটাই জানানো হয়েছে সেনার তরফে। গত কয়েকদিনে পুলওয়ামা ও শোপিয়ানে অন্তত ১০টি আইইডি বিস্ফোরণ ঘটানোর প্রচেষ্টা হয়েছে। তবে সবকটিই ভারতীয় সেনা ব্যর্থ করে দিয়েছে। জেনারেল ধিঁলো জানান ইদানিং কাশ্মীর উপত্যকায় আইইডি হামলার প্রবণতা বেড়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতেও শোপিয়ানে সেনাবাহিনীর উপর আত্মঘাতি হামলার একটি চেষ্টা হয়েছে। সেই ঘটনার জঙ্গিদের সন্ধান চলছে।