দূষণের জন্য রাজধানীতে বাড়ান হয়েছিল দীপাবলির ছুটি। অবশেষে সেই ছুটি শেষ হল। বুধবার থেকে খুলে গেল দিল্লির স্কুলগুলি। অ্যান্ট-পলিউশন মাস্ক পরে স্কুলে এল পড়ুয়ারা। 

দেশের রাজধানী নয়াদিল্লিতে বায়ু দূষণের মোকাবিলায় জনস্বস্থ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছিল। ৫ নভেম্বর পর্যন্ত রাজধানীর সব স্কুল বন্ধ রাখার পাশাপাশি এলাকায় সবরকম নির্মানকাজও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

দীপাবলির মরশুমে  সৃষ্টি হওয়া এই বায়ু দূষণকে সিভিয়ার প্লাস বলছে  পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ। সেকারণে ঘোষণা করা হয়েছিল পাবলিক হেল্থ এমার্জেন্সি। 

বাতাসের গুণমান সূচক বা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স ০ থেকে ৫০ মধ্যে থাকলে তা স্বাস্থ্যের পক্ষে অনুকূল বলে ধরা হয়। কিন্তু দীপাবলিতে বাজি ফোটানোর কারণে দিল্লি এবং নয়ডায় গড় একিউআই বেড়ে দাঁড়ায় ৩০০ বেশি। এই পরিস্থিতিতে কয়েকটি সংস্থা কর্মচারীদের দূষণ থেকে বাঁচতে ঘরে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছে। 

বুধবার সকালো লোধি রোড এলাকায় একিউআই-এর মাত্রা ছিল ২৭৯। মারাত্মক বায়ু দূষণ মোকাবিলায় স্কুলগুলিতে  দীপাবলির ছুটি ৫ নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছিল দিল্লি সরকার। দূষণ থেকে রক্ষা পেতে সরকারি ও বোসরকারি স্কুলগুলিতে ৫০ লক্ষ মাস্ক বিতরণের কর্মসূচি নেয় কেজরিওয়ালের  সরকার।