'নালায়েক', মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে-কে ঠিক এই ভাষাতেই সমালোচনা করলেন হিন্দু সাধু ও সন্তদের অন্যতম সর্বোচ্চ সংস্থা অখিল ভারতীয় সন্ত সমিতি। বালাসাহেব ঠাকরের উত্তরাধিকার দখল করছেন উদ্ধব ঠাকরে, এমনটাই মত তাঁদের। কারণ, রামমন্দিরের ভূমি পূজন অনুষ্ঠানে কোভিড-১৯ সংক্রমণ রোধ করতে তিনি ই ভূমি-পূজনের পরামমর্শ দিয়েছিলেন।

অখিল ভারতীয় সন্ত সমিতি-র সাধারণ সম্পাদক জীতেন্দ্রনন্দ সরস্বতী বলেছেন, উদ্ধব কনভেন্ট স্কুলে পড়াশোনা করতেন, তাই ভার্চুয়াল এবং বাস্তবের মধ্যে পার্থক্য তিনি বোঝেন না। উদ্ধব বাবার উত্তরাধিকার-কে ধার করে বেঁচে আচেন, এমন কথাও বলেন তিনি। অযোগ্যতার কারণেই তিনি রাজনৈতিক ভাষার সঙ্গে আধ্যাত্মিকতা-তে এক করে ফেলছেন বলে অভিযোগ করেছেন জীতেন্দ্রনন্দ। এমনকী কংগ্রেসের সমর্থনে সরকার গঠন নিয়ে খোঁচা মেরে উদ্ধব 'ইতালীয় ব্যাটালিয়নের কোলে বসে আছেন', এমন অভিযোগও করেছেন তিনি। তাঁর প্রশ্ন, 'মাটি স্পর্শ না করে কীভাবে ভূমি পূজা করা যায়?'

রাম মন্দিরের অন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তার জন্য অবশ্য তিনি বাল ঠাকরের দারুণ প্রশংসা করেন। সেই সঙ্গে জানিয়েছেন রাম জন্মভূমির পরে আন্দোলন হবে কৃষ্ণজন্মভূমি নিয়ে। অযোধ্যা আন্দোলনের সঙ্গেই কাশী এবং মথুরার আন্দোলন জড়িয়ে আছে বলে জানিয়েছেন সরস্বতী। তিনটি মন্দিরই হিন্দুত্ববাদীরা ফিরত চান। কাজেই অযোধ্যার পর লক্ষ্য কাশি এবং মথুরা।

এর আগে শিবসেনার মুখপত্র 'সমনা' পত্রিকায় প্রকাশিত এক সাক্ষাত্কারে উদ্ধব ঠাকরে বলেছিলেন, ই-ভূমি পূজা করার কথা। ভিডিও-কনফারেন্সের মাধ্যমেই এই ঐতিহাসিক অনুষ্ঠান করার কথা তুলেছিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। কারণ এই আনন্দযজ্ঞে লক্ষ লক্ষ লোক যোগ দিতে আগ্রহী হবেন। কিন্তু, তার মধ্য দিয়ে  করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার অনুমতি দেওয়া যায় না।