বিহারে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। এই মৃত্যু মিছিলের শেষ কোথায়, তা কেউ জানে না। এনকেফালাইটিসের জেরে বিহার যেন পরিণত হয়েছে মৃত্যুপুরীতে। এর আগে অবশ্য প্রশাসনের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ উঠেছিল। আর এবার গাফিলতির অভিযোগ উঠল চিকিৎসা পরিষেবার ওপর। 

এনকেফালাইটিস-এ মৃত শিশুদের পরিবারের দাবি, চিকিৎসকের গাফিলতিতেই মারা যাচ্ছে একের পর এক শিশু। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই কড়া পদক্ষেপ নিল বিহারের স্বাস্থ্যদফতর। চিকিৎসায়ে গাফিলতির অভিযোগে বরখাস্ত করা হল শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র চিকিৎসক ভীমসেন কুমারকে।

কেবলমাত্র শ্রীকৃষ্ণ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালেই মৃত্যু হয়েছে ১০৯ জন শিশুর। বেসরকারি সূত্র বলছে এখনও পর্যন্ত অ্যাকিউট এনকেফালাইটিস সিনড্রোমে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ গিয়েছে প্রায় দেড়শরও বেশি শিশুর। 

প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল যে, লিচু খাওয়ার ফলেই সংক্রামিত হয়েছে এই রোগ, যদিও মৃতের পরিবারের তরফে দাবি করা হয়েছিল যে, পর্যাপ্ত খাবারের অভাবও অনেকটাই দায়ী। আর এরজন্য প্রশাসন এবং চিকিৎসা পরিষেবা উভয়কেই দোষ দিয়েছেন তাঁরা। এরই পাশাপাশি বাড়তে থাকা শিশু মৃত্যুর জন্য প্রশাসনের দিকে কড়াভাবে আঙুল তুলেছেন বিরোধীরা। যার জেরে স্বভাবতই অস্বস্তির মুখে পড়েছেন নীতিশ কুমার সরকার। ভবিষ্যতে এই পরিস্থিতি কোন দিকে এগোয় এখন সেটাই দেখার।