গত মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) রাতে জেএনইউ ক্যাম্পাসে মুখোশধারী রডবাহিনীর হাতে আক্রান্ত হওয়া প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন বলিউড অভিনেন্ত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। এবার তাঁর বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যান মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। বৃহস্পতিবার চেন্নাইয়ে এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে স্মৃতি বলেন, দীপিকা ২০১১ সালেই জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি কংগ্রেসের সমর্থক। তাই তিনি টুকরে টুকরে গ্যাঙ-কে সমর্থন করবেন এটাই প্রত্যাশিত।

প্রসঙ্গত দীপিকা জেএইউ-তে যাওয়ার পর থেকেই বিজেপি-র নেতা-কর্মীরা ববিউড অভিনেত্রীর একটি পুরনো সাক্ষাত্কারের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিয়েছেন। যে ভিডিও-তে দেখা গিয়েছে দীপিকা বলছেন, প্রধানমন্ত্রী পদে তিনি রাহুল গান্ধীকে দেখতে চান। এই ভিডিও-কেই অস্ত্র করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

চেন্নাইয়ের ওই অনুষ্ঠানে স্মৃতি আরও বলেন, যাঁরা ওই ভিডিও দেখেছেন, তাঁরা সকলেই জানতেন দীপিকা পাড়ুকোন কোথায় গিয়ে দাঁড়াতে পারেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, তিনি অন্তত জানতেন দীপিকা এটাই করবেন।

যারা প্রত্যেক সিআরপিএফ জওয়ান নিহত হওয়ার সময় উৎসব করেন, তাদের পাশেই তিনি দাঁড়াবেন। যারা অন্য মেয়েদের মারধর করে, যারা আদর্শগতভাবে চোখে-চোখ রেখে কথা বলতে পারে না, যারা 'ভারত তেরে টুকড়ে হোঙ্গে' বলে স্লোগান দেয়, তাদের পাশেই দাঁড়াবেন বলি অভিনেত্রী।

দীপিকা পাড়ুকোন গত মঙ্গলবার জেএনইউতে গিয়ে প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন। তারপর থেকেই তাঁর এই পদক্ষেপ নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত সোশ্যাল মিডিয়া। বিজেপি নেতা তেজিন্দর বগ্গা দীপিকার চলচ্চিত্র না দেখার ডাক দিয়েছেন।

তবে বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভাড়েকর তাঁর দলের নেতাদের এই ধরণের মন্তব্যের সমালোচনা করে বলেছিলেন, শুধু শিল্পী নন, যে কোনও মানুষই যে কোনও জায়গায় গিয়ে তাঁর মতামত জানাতে পারেন। তাতে আপত্তি করার কোনও জায়গা নেই।