স্মৃতি ইরানির সঙ্গে মানুষের পরিচয় ঘটেছিল এক সময় একটা কাপুরের হাত ধরেই। ছোট পর্দায় তখন একের পর এক হিট সিরিয়ালের জন্ম দিচ্ছিলেন একতা কাপুর। অধিকাংশ মানুষেরই টিভির পর্দায় তখন স্টার প্লাস। মেগা জগতের একচেটিয়া দাপট তখন ছিল একতার। সময় বদলেছে, বদল ঘটেছে পরিস্থিতির। একসময় একতা কাপুরের জন্যই টেলিভিশনের পর্দায় উঠে এসেছিলেন স্মৃতি ইরানি। অর্জন করেছিলেন জনপ্রিয়তা। বন্ধুত্বের সূত্রপাত ঘটে তখন থেকেই। মন্ত্রী নন, তখন তিনি সকলের কাছের, বাড়ির বউ তুলসী। কিউ কি শাঁস ভি কাভি বহু থি সিরিয়ালের টিআরপি তখন তুঙ্গে। সেই থেকেই পথ চলা শুরু। তারপর জীবনের নানান উঠা পড়ায় পাশে পেয়েছেন স্মৃতি একতা কাপুরকে। কুড়ি বছর পার করেও ভোলেননি তিনি সেই সব দিনের কথা।

তাই নিজের জন্মদিনেই টুইট করে বন্ধুকে কৃতজ্ঞতা জানালেন মন্ত্রী। এখন তিনি খবরের শিরোনামে, এখন তিনি কেন্দ্রিয় মন্ত্রী। বিপুল ভোটে জয় লাভ করে সম্প্রতিই আবারও নজির গড়লেন স্মৃতি। নির্বাচনের পর প্রথম ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করলেন নিজের জন্মদিনের দিন। সেখানেই বন্ধুর ছবি দিয়ে জানালেন ধন্যবাদ। জানালেন জীবনের চরমতম দিনে পাশে ছিলেন একতা কাপুর।

হিন্দি সিরিয়াল জগতে পা রাখার পর থেকেই একতা কাপুরের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব ক্রমেই গাঢ় হতে থাকে। সেই বন্ধুত্বের রঙ এখনও ফিকে হতে দেয়নি কেউই। স্মৃতি ইরানির পোস্টে প্রকাশ্যে উঠে এলো সেই সত্যই।