দেশের বেহাল অর্থনীতি নিয়ে কংগ্রেস সরকারের দিকেই অভিযোগের আঙ্গুল তুলে চলেছেন নরেন্দ্র মোদী ও তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যরা। এই অবস্থায় মুখ খুললেন দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। মনমোহন বলেন, অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে গেলে আগে বুঝতে হবে সমস্যা কোথায়। এরপরেই মোদী সরকারকে বিঁধে মনমোহন বলেন, বেহাল অর্থনীতির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না। সরকার শুধু বিরোধীদের উপর দোষ চাপাতেই ব্যস্ত। 

সম্প্রতি ব্যাঙ্কে আর্থিক সঙ্কটের পুরো দায় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের উপর চাপিয়েছেন  অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। বিদেশের মাটিতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কাঠগড়ায় তুলেছেন দুজনকে। কারই পাল্টা জবাব দিলেন মনমোহন। 

মহারাষ্ট্রে বিধানসভার নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে মনমোহন সিং বলেন, এই সরকার বিরোধীদের উপর দোষ চাপানোর কাজে এতটাই মশগুল যে অর্থনীতিকে ঘুরিয়ে দাঁড় করানোর রাস্তা খুঁজে উঠতে পারছে না। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ বলেন, অর্থনীতির অসুখ সারাতে হলে আগে রোগটা ঠিকঠাক ধরতে হবে। 

আর্থিক মন্দা নিয়ে মোদী সরকারের সমালোচনায় সরব হয়েছে বিভিন্ন মহল। কদিন আগে এই বিষয়ে সমালোচনায় সরব হন খোদ অর্থমন্ত্রীর স্বামী পরকাল প্রভাকরও। যআ নিয়ে হইচই পড়ে যায়। যদিও এই আর্থিক মন্দার কথা মানতে নারাজ মোদী ও তাঁর বাহিনী। কিছুদিন আগে দেশে গাড়ি বিক্রি কমে যাওয়ার কারণ হিসাবে নতুন প্রজন্মের ক্যাব চড়াকে দায়ি করেছিলেন নির্মলা সীতারমন। এনিয়ে রাজনীতির ময়দানো বিস্তর জলঘোলা হয়।  এরপর সম্প্রীতি হিন্দি সিনেমার ব্যবসার পরিসংখ্যান তুলে দেশের আর্থিক অবস্থা ভাল রয়েছে বলে দাবি করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ। যদিও বিতর্কের জেরে পরে নিজের মন্তব্য ফেরান মন্ত্রী। এবার বেহাল অর্থনীতি নিয়ে মনমোহনের সোচ্চার হওয়া তাৎপর্যপূর্ণ বলেউ মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।