কোনও ব্যক্তির বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করা হলে তাঁর পরিচয় প্রকাশ করা যাবে না- এদিন এমনটাই নির্দেশ দিল শীর্ষ আদালত। সুপ্রিমকোর্টের তরফে একটি বিবৃতি প্রকাশ করার মাধ্যমে জানামো হয়েছে যে, ধর্ষণের মামলা চলাকালীন কোনও অভিযুক্তের নাম পরিচয় গোপন রাখতে হবে ততদিন, যতদিন না সেই মামলার নিস্পত্তি হচ্ছে এবং অপরাত প্রমাণিত হচ্ছে। 

এদিন আরও বলা হয় যে, ধর্ষণের অভিযোগ যে ব্যক্তির দিকে তাকে 'অভিযুক্ত' বলে সম্বোধন করাটাও আপত্তিকর বলে মনে করছে সুপ্রিমকোর্ট। তাই আরও বলা হয় যে, যতক্ষণ না একজন ব্যক্তি বিচারাধিন তাঁকে 'তথাকথিত অভিযুক্ত' (Alleged Accused) বলে সম্বোধন করা উচিত। 

অ্যাডভেঞ্চারের টানে এবার জঙ্গলে নরেন্দ্র মোদী, দেখুন রুদ্ধশ্বাস টিজার

তবে কেন এই নির্দেশিকা, সুপ্রিম কোর্ট-এর কথায় অনেকসময়ে নিস্পাপ মানুষের ওপরেও মিথ্যা ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়। বিচারের সময়ে সমস্ত সাক্ষ্যপ্রমাণ বিচার করে দেখা যায় যে, যার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে সেই ব্যক্তি সম্পূর্ণ নির্দোষ। তাই ধর্ষণের অভিযোগে বিযোয়ে ফৌজদারি আইনের ক্ষেত্রে নিরপরাধ ব্যক্তিকে মিথ্যা অভিযোগের হাত থেকে বাঁচাতে ধর্ষিতা বা নির্যাতিতার পাশাপাশি ধর্ষণ মামলায় বিচারাধীন ব্যক্তির নাম পরিচয় গোপন রাখাই সঠিক বলে মনে করছে সুপ্রিম কোর্ট। তাই সুপ্রিম কোর্টের তরফে কেন্দ্রীয় সরকারকে এই নির্দেশই দেওয়া হয়েছে।