আগামী বছরই বাংলায় হিন্দু রাজ প্রতিষ্ঠা হবে। দলীয় প্রধান ডেপি নাড্ডার কনভয়ের হামলার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করে বললেন বিজেপি নেত্রী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর। তিনি মধ্যপ্রদেশের ভোপাল  থেকে নির্বাচিত সাংসদও। তিনি বলেন মমতা বন্ধ্য়োপাধ্যায় বুঝতে পেরেছেন তাঁর শাসনের অবসান হতে চলেছে। আর সেই কারণে তিনি সম্পূর্ণ হতাশ হয়ে পড়েছেন। 


বিজেপি নেত্রী তথা সাংসদ প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর বলবেন, আগামী বছরই পশ্চিমঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন হবে। সেখানে জিতবে বিজেপি। আর সেই রাজ্যে হিন্দ রাজ প্রতিষ্ঠা হবে। একই সঙ্গে তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও নিশানা করেন। তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝতে পেরেছেন তাঁর হার নিশ্চিত। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি জিতবে এই রাজ্য থেকে। আর সেই কারণে তিনি হতাশ হয়ে পড়েছেন বলেও অভিযোগ করেন। গত বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার কনভয়ের ওপর হামলায় চালায় একদল দুষ্কৃতী। তারপর থেকেই রাজ্য রাজনীতিতে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে চাপানউতর শুরু হয়েছে। আর তরজা শুধুমাত্র রাজ্যস্তরের নেতৃত্বের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। সেই তরজায় জড়িয়ে পড়েছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও। 

করোনা টিকাকরণের নীল নকসা , দৈনিক নূন্যতম ১০০ জনকে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা কেন্দ্রের ...

আমেরিকায় গান্ধী মূর্তির অবমাননা খালিস্তানিদের, কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানাতে গিয়ে জাতির জনককে অসম্মান..

৯ বছর আগে ৩৪ বছরের বাম জমানার অবসান ঘটিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস এই রাজ্যের ক্ষমতা দখল করেছিল। বর্তমানে বামেরা এই রাজ্যে অস্তিত্ব সংকটে ভুগছে। গত লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই মাথা তুলতে শুরু করেছে বিজেপি। বর্তমানে এই রাজ্যে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের মূল প্রতিপক্ষ বিজেপি। বিধানসভা নির্বাতন যত এগিয়ে আসছে ততই রণংদেহী মূর্তি ধারণ করছে দুই রাজনৈতিক দল। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে তাতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা।