লক্ষ্য একটাই লোকাল থেকে গ্লোবাল পর্বে উন্নিত হওয়া। আর সেই লক্ষ্যেই প্রধানমন্ত্রী ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের ঘোণষা করেছিলেন। গত দুদিনের মত শুক্রবারও কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরকে পাশে বসিয়ে ২০ লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের বিষদ বিবরণ দিয়েছেন। এদিন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মালা সীতারমন মৎস্যজীবীদের পাশে দাঁড়ালেন। ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রীর মৎস সম্প্রদায়ের যোজনায় জোর দিয়ে ২০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ দেওয়া হচ্ছে। সামুদ্রিক মৎস্য শিকার সংক্রান্ত খাতে ১১ হাজার আর অন্তর্দেশী মৎস্য শিল্পের জন্য ৯ হাজার কোটি টাকা অনুমোদন করেছে। পাশাপাশি তিনি আশা প্রকাশ করেছেন এই প্রকল্প ৫৫ লক্ষ মানুষের কর্মসংস্থানের সহায়ক হবে। রফতানিও বাড়ানো যাবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি বলেন মৎস্যজীবীদের মাছ ধরার জাহাজ সরবরাহ করা যেতে পারে। ফিশিং হারবার তৈরি করা যেতে পারে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন। 

এদিন কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রী নির্মলা সীতারমন ঘোষণা করেন কৃষি পরিকাঠামো উন্নয়নে প্রায় ১ লক্ষ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। পাশাপাশি অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আইনেও সংশোধন আনা হয়েছে। পাশাপাশি মৌমিচি চাষেও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। নির্মলার কথায় অনেক দরিদ্র কৃষকই উপকৃত হবেন। 

তবে এবার থেকে শুধুমাত্র লাইসেন্সধারীদের কাছেই পণ্য বিক্রি করা যাবে এমন আর থাকছে না। কৃষকরা তাঁদের ইচ্ছে মত কৃষিজাত পণ্য বিক্রি করতে পারবেন।