শিক্ষার প্রসার ঘটানোর জন্য চারিদিকে নানারকম কর্মসূচী গ্রহণ করা হচ্ছে, তখন ওড়িশায় বন্ধের মুখে প্রায় ১০০০ স্কুল। কিন্তু শিক্ষার প্রসারের যখন চারিদিকে এতরকমের কর্মসূচীর ডাক দেওয়া হচ্ছে,তখন কেন বন্ধের মুখে এত স্কুল?

এর কারণ হিসাবে জানা গিয়েছে প্রথমত ছাত্র-ছাত্রীর অভাব এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে শিক্ষক-শিক্ষিকার অভাবের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হবে প্রায় ১০০০টি স্কুল। গত রবিবার ওড়িশার গণ শিক্ষা মন্ত্রী সমীর রঞ্জন দাস সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, ওড়িশা সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের ৯৬৬টি স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হবে। মূলত ছাত্র-ছাত্রীর অভাব এবং পর্যাপ্ত শিক্ষকের অপ্রতুলতার জেরে রাজ্যের ৯৬৬টি স্কুল বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। 

তিনি আরও জানান যে, সরকারের তরফ থেকে যে যে স্কুলগুলি বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সেইসব স্কুলের ছাত্রসংখ্যা ১০ জনেরও কম। কোনও কোনও স্কুলে আবার ছাত্র সংখ্যা তারও কম দুজন কী তিনজন। তাঁর আরও দাবি, এইভাবে স্কুল বন্ধের জন্য সরকারের তরফে শিক্ষক-এর অপ্রতুলতার সমস্যাটিও মেটানো সম্ভব হবে। 

তবে তিনি আরও জানিয়েছেন, যে স্কুলগুলি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে সেখানে যে ক'জন ছাত্র বা শিক্ষক ছিলেন তাঁদের অন্যান্য স্কুলে বদলি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, এইসব ছাত্রদের উৎসাহ দেওয়ার জন্য বাড়ি থেকে তাঁদের যাতায়াত ভাড়া বাবদ ৩০০০, ৪০০০ এবং ৬০০০ টাকা করে দেওয়ার কথাও ভাবছে ওড়িশা সরকার।