মানুষ গরু খেলে যদি শাস্তি পায়, তাহলে বাঘ কেন শাস্তি পাবে না? বাঘও তো গরু খায়। অবিশ্বাস্য হলেও এটাই সত্যি, বুধবার গোয়া বিধানসভায় দাঁড়িয়ে এনসিপি বিধায়ক চার্চিল আলেমাও এই দাবি করেছেন। সেখানে সেই রাজ্যে সম্প্রতি বিষ খাইয়ে বাঘ মারার ঘটনা নিয়ে আলোচনা চলছিল। তার মাঝেই উদ্ভট দাবিটি তোলেন এনসিপি নেতা।

চার্চিল আলেমাও এদিন বলেন, 'বাঘ গরু খেলে তখন তার কী শাস্তি হবে? যখন মানুষ গরু খায় তখন তো তাকে শাস্তি দেওয়া হয়। বন্যপ্রাণ হিসাবে বাঘ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু মানুষের ক্ষেত্রে গরু বেশি গুরুত্বপূর্ণট। একই সঙ্গে এদিনের আলোচ্য ঘটনার বিষয়ে তিনি বলেন, 'পুরো পর্বে মানবিক দিকটা এড়িয়ে যাওয়া উচিত নয়'।

গত মাসে গোয়ার সাত্তারি এলাকার গোলাভালি গ্রামের কাছে মহাদেই অভয়ারণ্যে, কয়েকদিনের মধ্যে চারটি বাঘের শবদেহ পাওয়া গিয়েছিল। তার আগে কয়েকদিন ধরে গ্রামে গবাদি পশুকে মেরেছিল বাঘ বলে জানা গিয়েছে। অভিযোগ উঠেছে, এরপরই গ্রামবাসী বাঘগুলিকে বিষ খাইয়ে হত্যা করেছে।

এদিন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত-ও বলেছেন বাঘেরা গ্রামবাসীদের পালিত পশুগুলিকে আক্রমণ করেছিল বলেই তাঁরা বাঘগুলিকে হত্যা করেছিল। তিনি জানান, 'বাঘের আক্রমণে যেসব কৃষকের গবাদি পশুর ক্ষতি হয়েছে তাদের তিন-চার দিনের মধ্যে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।"

গত বছর বাঘ সংরক্ষণের ডাক দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বলেছিলেন, 'বাঘো মে বাহার হ্যায়', অর্থাৎ 'বাঘেই সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে'। তাছাড়া বাঘ ভারতের জাতীয় পশুও। কাজেই সেই পশুর হত্যার বিষয়ে এই ধরণে মন্তব্য জনপ্রতিনিধিদের থেকে কাম্য নয়।