২২ জানুয়ারি সকাল ৭টায় নির্ভয়া মামলার চার আসামির ফাঁসি। কিন্তু তার আগেই সামনের কয়েকদিনের মধ্যেই ফাঁসি হতে চলেছে তিহার জেলে। এই প্রথম চার আসামির একসঙ্গে ফাঁসি হবে তিহারে। তার আগে যাতে সবকিছু ঠিকঠাক থাকে তার জন্যই একটি ছদ্ম ফাঁসির মহড়া দেওয়া হবে।

বুধবার এক বিবৃতিতে তিহার জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দু-একদিনের মধ্য়েই তিহারের জেলের সেল নম্বর ৩-এ এই ফাঁসির মহড়া হবে। ২০১৩ সালের সংসদ ভবনে হামলাকারী আফজল গুরু-রও ফাঁসি হয়েছিল তিহারের তিন নম্বর সেলে। মহড়ায় আসামিদের সমান ওজন ব্যবহার করে ফাঁসিমঞ্চের পরীক্ষা করা হবে। সেই সময় সেখানে উপস্থিত থাকবেন পিডব্লুডি-র এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার, সুপারিন্টেন্ডেন্ট-সহ অন্যান্য জেল আধিকারিকরা।

এই প্রথম ভারতে চার আসামির একসঙ্গে ফাঁসি হবে। এরজন্য গত কয়েকদিনে নতুন করে একটি পাঁসিমঞ্চ তৈরি করা হয়েছে তিহার জেলে। প্রত্যেক ফাঁসির আগেই মহড়া দেওয়াটা বাধ্যতামূলক। তবে এই নতুন ফাঁসিমঞ্চের সবকিছু ঠিকঠাক আছে কিনা তা দেখাটাও এই ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছ।

জেল কর্তৃপক্ষ আরও জানিয়েছে, ফাঁসির আগে পর্যন্ত এই চার আসামিকেই নির্জন কারাগারে রাখা হবে। অর্থাৎ আর কোনও বন্দীর সঙ্গে তাঁদের যোগাযোগ থাকবে না। তবে পরিবারের সদস্যের সঙ্গে তাঁদের শেষ একবার দেখা করার অনুমতি দেওয়া হবে।