কাশ্মীর উপত্যকায় সন্ত্রাসবাদ দমনে আরও এক বড় সাফল্য পেল ভারতীয় সেনাবাহিনী বুধবার সোপোরে সেনার গুলিতে খতম হল লস্কর-ই-তৈবার অন্যতম বড় কমান্ডার আসিফ। সম্প্রতি জম্মু-কাশ্মীরের বেশ কিছু সন্ত্রাসবাদি হামলার পিছনে ছিল এই আসিফ। এদিন একটি গাড়িতে করে যাওয়ার সময় তাঁকে আটকায় সেনা। আচমকাই গুলি ছুড়তে শুরু করে সে। কিন্তু সেনা পাল্টা গুলি ছুড়তে শুরু করলে সে আর কিছু রতে পারেনি।

কাশ্মনীরের পুলিশ জানিয়েছে  সম্প্রতি স্থানীয় এক ফল ব্যবসায়ীর পরিবারের উপরসে হগুলি চালিয়েছিল। তাতে তিনজন আহত হন। এমনকী এক শিশুকেও সে রেয়াত করেনি। তার আগে সোপোরেই এক ভিন রাজ্যের এক শ্রমিককে হত্যা করেছিল সে। আপাতত সে উপত্যকায় কোনও বড় ধরণের নাশকতা ঘটানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিল বলে সন্দেহ পুলিশের।

সোমবারই উপত্যকায় মানুষকে হুমকি পোস্টার লাগিয়ে সন্ত্রস্ত করার অভিযোগে আটজন কে গ্রেফতার করেছে সেনা। এই আটজনের নাম আইজাজ মির, ওমর মির, তৌসিফ নজর, ইমতিয়াজ নজর, ওমর আকবর, ফয়জান লতিফ, দানিশ হাবিব, এবং শওকত আহমেদ মির। জানা গিয়েছে এরাও লস্কর-ই-তৈবা গোষ্ঠীর সঙ্গেই জড়িত।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনী উপত্যকাকে অশান্ত করতে নানা ভাবে জঙ্গি কার্যকলাপ জারি রাখার চেষ্চটা চালিয়ে যাচ্ছে বলে খবর রয়েছে সেনাবাহিনীর কাছে। কিন্তু যেভাবে কড়া নিরপত্তার জাল বিছানো হয়েছে, তাতে লস্কর বা অন্য জঙ্গি সংগঠনগুলি দাঁতও ফোটাতে পারছে না।