উত্তর-পূর্ব ভারতে অসম মেঘালয় বাংলাদেশ সীমান্তে আবারও বড়সাফল্য পেল ভারতীয় সেনা বাহিনী। আলফা জঙ্গি সংগঠনের দ্বিতীয় নেতাকেও হার মানতে বাধ্য হল।  গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সুপরিকল্পিত একটি অভিযান চালিয়েছিল ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। তাতেই আলফা(আই) নেতা, এসএস কর্ণেল দৃষ্টি রাজখোয়াসহ চার জঙ্গি আত্মসমর্পণ করে। বাকিরা হল দৃষ্টি রাজখোয়ার ঘনিষ্ট সহযোগী হিসেবে পরিচিত এসএস কর্পোরাল বেদন্ত, ইয়াসিন অসম, রূপজ্যোতি অসম, মিঠুন অসম। সেনা সূত্রের খবর বিপুর পরিমাণে অস্ত্র নিয়েই উলফা জঙ্গিরা আত্মসমর্পণ করেছে। 

সেনা সূত্রের খবর গত এক মাস ধরে অপারেশন চালিয়েছিল সেনা জওয়ান ও ভারতীয় গোয়েন্দা বিভাগের আধিকারিকরা। নির্দিষ্ট তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই এই অপারেশন চালান হয়। দীর্ঘ দিন ধরেই মোস্ট ওয়ান্টেডের তালিকায় নাম ছিল দৃষ্টি রাজখোয়ার। মূলত নিম্ম অসমের একাধিক জঙ্গি কর্যাকলাপের নেতৃত্ব দিত সে। ২০১১ সাল পর্যন্ত জঙ্গি সংগঠনটির ১০৯ নম্বর ব্যাটালিয়নের মাথা ছিল। সূত্রের দাবি ধৃত রাজখোয়া সংগঠনের মাথা পরেশ বড়ুয়ার ঘনিষ্ট আত্মীয়। তাই তার এই আত্মসমর্পণ জঙ্গি সংগঠনটির কাছে একটি বড়় ধাক্কা বলেই মনে করছে কেন্দ্রীয় প্রশাসন। 

সূত্রের খবর রাজখোয়াকে সেনাবাহিনী নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে। সূত্রের খবর দীর্ঘ দিন ধরেই বাংলাদেশে ছিল দৃষ্ট রাজখোয়া। দিন কয়েক আগেই সীমান্ত পার হয়ে ভারতে আসে। কয়েক সপ্তাহধরে ছিল মেঘালয়াতে। দীর্ঘ দিন ধরেই অসমকে একটি আদালা রাজ্যের স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি জানিয়েছে আন্দোলন চালাচ্ছিল উলফা জঙ্গি সংগঠন। দৃষ্টি রাজখোয়ার গ্রেফতারিতে সেই আন্দোলন বড়সড় ধাক্কা খেল বলেই মনে করেছে সংশ্লিষ্ট মহল।