দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সরাসরি সাক্ষাতের। অবশেষে স্বাধীনতা দিবসের দিনই সেই স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে তিন তালাক-এর বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করা ইশরাত জাহানের। বিজেপির মহিলা মোর্চার জাতীয় সভানেত্রীর কাছ থেকে ফোন পেয়েই এখন তড়িঘড়ি দিল্লি যাচ্ছেন তিনি।

সুপ্রিম কোর্টে তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিল বাতিলের জন্য যাঁরা আবেদন করেছিলেন তাঁদের একজন এই ইশরাত। তিনি জানিয়েছেন, কখনও মোদীর সঙ্গে সরাসরি সাক্ষাতের স্বপ্ন পূর্ণ হবে তিনি ভাবেননি। এই বছর রাখি-বন্ধন ও স্বাধীনতা দিবস একই দিনে পড়েছে। তাই তিনি মোদীর সঙ্গে দেখা হলে একটি তেরঙ্গা রাখি পরাবেন বলে ঠিক করেছেন। সেই সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন বাংলার রসগোল্লা।

ইশরাত জানিয়েছেন, এই বছর স্বাধীনতা দিবস এক বিশেষ দিন। শুধু একই দিনে রাখি উৎসব বলেই নয়। স্বাধীনতা দিবসের আগেই তিন তালাকের হাত থেকে স্বাধীন হয়েছেন এই দেশের মুসলিম মহিলারা, আর কাশ্মীর মুক্ত হয়েছে ৩৭০ ধারার হাত থেকে। নরেন্দ্র মোদীর ভুয়সী প্রশংসা করে তিনি বলেছেন, তিনি মোদীর দীর্ঘজীবন কামনা করেন। যেভাবে তিনি সরকার চালাচ্ছেন জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর পদে থেকে সেভাবেই তিনি সরকার চালান, এটাই চান ইশরাত।

অনেকেই বলে থাকেন, ইশরাত বিজেপির তৈরি একটি মুখ। ইশরাতের বক্তব্য বিজেপির বদলে অন্য কোনও দলও যদি তিন তালাক তুলে দেওয়ার পক্ষে কাজ করত, তাহলে তিনি তাদের সমর্থন করতেন। কিন্তু সবাই মুখে অনেক কথা বললেও কাজে করে দেখাতে পারেননি। তাই তিনি সারা জীবন বিজেপিকেই সমর্থন করবেন।

এর আগে জানা গিয়েছিল বারানসীর মুসলিম মহিলারাও তিন তালাক আইন আনার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানিয়ে রাখি পাঠাচ্ছেন।