অবাঞ্চিত! এমনটা বললে মোটেও অত্যুক্তি হয় না। কারণ বলা হচ্ছে কচ্ছপ প্রজাতির মধ্যে সবচেয়ে বেশি অবহেলিত এই ওলিভ রিডলি সি টার্টল। এই প্রজাতির কচ্ছপের আলোচনায় উঠে আসার কারণ এর আকৃতি এবং সমুদ্র সৈকত রাঙিয়ে এদের ডিম পেড়ে প্রজনন প্রক্রিয়ায় অংশ নেওয়া। এমন প্রজাতির এক কচ্ছপকে প্রাণে বাঁচিয়ে এখন শিরোনামে ভারতীয় উপকূলরক্ষীবাহিনীর জওয়ানরা। 

চব্বিশ এপ্রিল-এর এই ঘটনার ভিডিও এখন ছড়িয়ে পড়েছে নেট দুনিয়ায়। আর তারপরেই তা ভাইরাল হয়েছে। এই ভিডিও-তে দেখা গিয়েছে কতটা ভয়ঙ্করভাবে জালের সঙ্গে জড়িয়ে গিয়েছিল কচ্ছপটি। কীভাবে জালের খপ্পর থেকে পরিত্রাণের জন্য সে ছটপট করছিল, ভিডিও-তে তাও ধরা পড়েছে।  জানা গিয়েছে, চব্বিশ এপ্রিল আরবসাগরের বুকে পাকিস্তানের জলসীমার কাছে টহল দিচ্ছিল উপকূলরক্ষীবাহিনীর একটি জাহাজ। সেখান থেকেই ডিঙি নিয়ে ভেসে পড়েছিলেন কয়েক জন জওয়ান। উদ্দেশ্য ছিল সমুদ্রের জলসীমা লঙ্ঘন করে কেউ আসছে কি না তা নজরদারি করা। এই সময়েই আচমকা জালে আটকে থাকা ওলিভ রিডলি সি টার্টল-টি-কে দেখতে পান উপকূলরক্ষীবাহিনীর জওয়ানরা। তাঁরাই উদ্যোগ নিয়ে কচ্ছপটিকে জালসুদ্ধ রবারের ডিঙিতে তোলেন। এক উপকূলরক্ষী বাহিনীর জওয়ান কচ্ছপটিকে দুই হাতে ধরেছিলেন। আর এক জওয়ান ছুরিহাতে সমানে নেটটি কাটতে থাকেন। 

আরবসাগরের বুকে যেখানে এই ঘটনা সেখান থেকে পাকিস্তানের জলসীমা কয়েক বিগত। কচ্ছপটি কোনওভাবে বেচাল হলেই পাকিস্তানের জলসীমায় ঢুকে পড়তে পারত। সেক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে পারত উপকূলরক্ষীবাহিনীর এই দল। কিন্তু, এমন সব আশঙ্কার কথা-কে মাথা থেকে সরিয়েই উপকূলরক্ষী বাহিনীর দলটি কচ্ছপটি-কে বাঁচাতে সমান তালে লড়াই চালিয়ে যায়। শেষমেশ ছুরি দিয়ে জাল কেটে কচ্ছপটিকে বন্দিদশা থেকে মুক্ত করতে সমর্থ হন জওয়ানরা। এরপর আরবসাগরের বুকেই কচ্ছপটিকে ছেড়ে দেওয়া হয়। 

ভারতীয় উপকূলরক্ষীবাহিনীর এই মহানুভবতা সকলকেই মুগ্ধ করেছে। বিশ্ব বন্য প্রাণ সংগঠন বা ডবলু ডবলু এফ-এর দাবি, ওলিভ রিডলি সি টার্টল আজ বিপন্ন। সবচেয়ে বড়কথা, এই প্রজাতির কচ্ছপ বিলুপ্ত হওয়ার পিছনে সবচেয়ে বড় খলনায়ক মানব জাতি। কারণ তাদের ছড়ানো দূষণ থেকেই পৃথিবী এক বিপন্নতার সম্মুখিন হয়েছে। এর সরাসরি প্রভাব পড়েেছে ওলিভ রিডলি সি টার্টেল-এর মতো কচ্ছপ প্রজাতির উপরে। এদের আকারের জন্যও এর চট করে সব মানুষের মনে স্থান করতে পারে না বলেই দাবি। 

গত বছর মুম্বই-এর সৈকত সাক্ষী থেকেছিল এক বিশাল সংখ্যক ওলিভ সি টার্টলের প্রজননের। ঝাঁকে ঝাঁকে কচ্ছপ এসেছিল মুম্বই-এর সমুদ্র সৈকতে। আর সেখানেই তারা বালির মধ্যে লুকিয়ে রেখেছিল ডিম। কুড়ি বছর আগে শেষবার মুম্বই-এর সৈকত এই কচ্ছপের দল প্রজননের জন্য ডেরা বেঁধেছিল। তারপর এই প্রথম প্রজননের জন্য তারা মুম্বই-এর সৈকতে এসেছিল। ফলে, উপকূলরক্ষীবাহিনীর কচ্ছপ রক্ষা অভিযানে মুম্বই-এর এই ঘটনাও এখন আলোচনায় ফিরে এসেছে।