এক বন্ধুকে খুনের অভিযোগে বিহারের রাজধানী পাটনা থেকে দুই বন্ধুকে গ্রেফতার করল পুলিশ। শুধু খুন নয়, মৃত ব্যক্তির সঙ্গে ধৃতরা সহবাসও করে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। 

গত মঙ্গলবার দক্ষিণ দিল্লির নেবসরাই এলাকায় খুনের ঘটনা ঘটে। জানা যায়, মৃতের বাড়িতে উপস্থিত হয়েছিল অভিযুক্ত দু'জন। তিন বন্ধুতে মিলে চলছিল মদ্যপান। সেই সময় তিনজনের মধ্যে তর্কাতর্কি শুরু হয়। অতিরিক্ত নেশার ফলে অপ্রকৃতস্থ দুই ব্যক্তি এরপর শ্বাসরোধ করে খুন করে তৃতীয় জনকে। অভিযোগ, দুই বন্ধু এরপর মৃত ব্যক্তির সঙ্গে যৌনক্রিড়ায় মত্ত হয়ে ওঠে। বুধবার সকালে নিজের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় ওই ব্যক্তির দেহ।

আরও পড়ুন: দল বদলাতেই জ্যোতিরাদিত্যের বিরুদ্ধে জালিয়াতির মামলা, তদন্ত শুরু করল কমলনাথের সরকার

জেরায় দুই অভিযুক্ত জানিয়েছে মঙ্গলবার বিকেলে মদ্যপান করতে তারা তৃতীয় ব্যক্তির বাড়ি গিয়েছিল। কিন্তু নেশা করার সময় তিন জনের মধ্যে ঝামেলা শুরু হয়। খুনের পর তৃতীয় বন্ধুর দেহটি সরানোর সময় তা দেখে ফেলেন মৃতের বোন। বিষয়টি জানাজানি হতে চলেছে বুঝতে পেরেই এরপর পালিয়ে যায় দুই অভিযুক্ত। 

আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুতে এবার করোনায় আক্রান্ত গুগল কর্মী, দেশে ক্রমেই বাড়ছে আতঙ্ক

মৃতের বোন পুলিশে খবরে দেন। ওই মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে এরপর তদন্ত শুরু করে পুলিশ। জানা যায় খুনের পর পাটনায় পালিয়েছে দু'জনে। এরপর দিল্লি পুলিশের এক বিশেষ দল পাটনায় রওনা দেয়। পাটনা রেলওয়ে স্টেশন থেকেই দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের একজন ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা, অপরজনের বাড়ি বিহারে বলে জানা গিয়েছে।