আপনার মোবাইলেও কি এসেছে এই বার্তা? আমেরিকায় যেমন বেকারদের ভাতা দেওয়া হয়, তেমন ভারতেও চালু করতে চলেছে মোদী সরকার। কর্মসংস্থান না থাকা ব্যক্তিদের মাসে মাসে ৩৫০০ টাকা বেকার ভাতা দেবে মোদী সরকার। প্রধানমন্ত্রী বেরোজগার ভাতা প্রকল্পের আওতায় এই টাকা দিয়ে বেকার যুবক-ষুবতীদের সাহায্য় করা হবে বলে দাবি করা হচ্ছে। এই রকম একটি বার্তা সঙ্গে বিশদ জানার জন্য একটি লিঙ্ক সহকারে গত কয়েকদিনে অনেকেরই সোশ্যাল মিডিয়ায় এসেছে।

সেই বার্তায় আরও বলা হয়েছে, এর জন্য নাম রেজিস্টার করতে কোনও মাশুল গুণতে হবে না। আবেদনকারীদের বয়স হতে হবে ১৮ থেকে ৪২ বছরের মধ্যে এবং ন্যুনতম দশম শ্রেণী পাস করার শিক্ষাগত যোগ্যতা চাই। মে মাসের ১৫ তারিখের মধ্যেই আবেদন করতে হবে। হোয়াটসঅ্যাপে করোনাবাইরাস মহামারির সময়ে এত বেশি সংখ্যায় গুজব ছড়াচ্ছে, যে অনেকেই এই বার্তা বিশ্বাস করেননি। কিন্তু, এত সুন্দর করে গুছিয়ে প্রকাশ করায় অনেকেই দ্বিতীয়বার ভাবতে বাধ্য হয়েছেন।

এশিয়ানেট নিউজ বাংলার কোনও বিশ্বস্ত সংবাদমাধ্যমে খবরটি না পেয়ে এই খবরটি সত্যি কিনা তাই নিয়ে খোঁজ করা শুরু করেছিল। আর তা করতে গিয়ে জানা গিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে উইনিভার্সাল বেসিক ইনকাম বা সর্বজনীন ন্যুনতম রোজগার নামে একটি প্রকল্প চালু করতে চলেছে। তারই অংশ হিসাবে প্রধানমন্ত্রী বেরোজগার ভাতা নামে একটি প্রকল্পের কতা ভাবা হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু এখনও এই নিয়ে কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আলোচনার স্তরে রয়েছে, ঘোষণা তো অনেক দূরের বিষয়। এমনকী সরকারের তথ্য যাচাইকারীরাও এই ধরণের কোনও প্রকল্পের খতা সরকার ঘোষণা করেনি বলে জানিয়েছে।

কাজেই যে বার্তাটটি পাঠানো হচ্ছে এবং তার সঙ্গে যে লিঙ্কটি রয়েছে, সেটি ভুয়ো। বেকার ভাতার কথা সরকার ঘোষণা করলে তবেই নাম নথিভুক্তির প্রশ্ন আসবে। কাজেই এই ভুয়ো বার্তায় বিভ্রান্ত হবেন না। নাম নথিভুক্ত করার জন্য কোনও লিঙ্কে ক্লিক করবেন না, কিংবা কোনও ওয়েবসাইটে ব্যক্তিগত তথ্য দেবেন না। সাবধান থাকুন।