আভ্যন্তরীন উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষ্যে এক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত ১০টি খাতে ২ লক্ষ কোটি টাকা খরচ করার ক্ষেত্রে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্র। মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকের পর সাংবাদিক সম্মেলনে এই কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর। তিনি বলেছেন উৎপাদনের সঙ্গে যুক্ত ওষুধ উস্পাত, অটো টেলিকমসহ একাধিক  ক্ষেত্রগুলিতে ইনসেন্টিভ দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। 

পিএলআই প্রকল্পের মাধ্যমে যে ১০টি সেক্টর উপকৃত হবে বলে মনে করা হচ্ছে সেগুলি হল ১.অ্যাডভান্স কেমিস্ট্রি সেল বা ব্যাটারি, ২.বৈদ্যুতিন বা প্রযুক্তি পণ্য, ৩. অটোমোবাইলস এবং গাড়ি শিল্পের সঙ্গে সংযুক্ত শিল্প, ৪. ওষুধ ও ফার্মাসিউটিক্যাল পণ্য, ৫. টেলিকম ও নেটওয়ার্কিং পণ্য, ৬.বস্ত্র শিল্প ও বস্ত্র শিল্পের অনুসারী শিল্প, ৭. খাদ্য পণ্য, ৮. উচ্চ দক্ষতা ও সৌর পিভি মডিউল, ৯. হোয়াইট গুডস বা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্র ও এলইডি, ১০. বিশেষ ইস্পাতজাত পণ্য।

উৎপাদন সংযুক্ত ইনসেনটিভ প্রকল্পের মূল লক্ষ্যই হল  ১০টি সেক্টরে উৎপাদন বাড়ানো ও তার মানোন্নয়ন করা। ভারতীয় নির্মাতাদের বিশ্বব্যাপী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা, দক্ষতা ও আধুনিক প্রযুক্তির ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীকে আকৃষ্ট করা, দক্ষতা নিশ্চিত করা, আর্থিক উন্নতিতে সহায়তা করা, রফতানি বাড়ানো  ও ভারতকে বিশ্ব সরবরাহের কেন্দ্রস্থল হিসেবে পরিণত করার লক্ষ্যেই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে বলেই জানান হয়েছে সরকারি বিবৃতিতে। ভারতকে বিশ্বগুরু তৈরি করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আত্মনির্ভর ভারত প্রকল্পের সূচনা করেছে। সেই প্রকল্পের সঙ্গে তাল মিলিয়েই  দেশীয় সংস্থাগুলির উন্নয়নের লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় সরকার এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বলেও মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।