কাশ্মীর থেকে সদ্য় ফিরেছেন তিনি। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক নিরাপত্তা বৈঠক সেরেছেন রাজ্যপাল সত্যমালিক সিংহের সঙ্গে। তারপরেই বড় সিদ্ধান্তের কথা জানালেন অমিত শাহ। রমজান এবং অমরনাথ যাত্রা পর্যন্ত কাশ্মীরের ভোট এক্ষুনি হচ্ছে না। নিরাপত্তারর কথা ভেবেই এই ভোট পিছিয়ে দেওযার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কাশ্মীর বিধানসভার ভোট হতে পারে এই বছরের শেষে। একই সঙ্গে তাঁর দাবি, এই বছরের শেষ পর্যন্ত কাশ্মীরে যাতে রাষ্ট্রপতির শাসন জারি থাকে, সে ব্যাপারেও প্রস্তাবনা তৈরি করবেন তিনি।

এদিন সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তীব্র প্রতিক্রায় দেন কাশ্মীর নিয়ে। চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাক কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে তাঁর বক্তব্যে-

  • কাশ্মীর সমস্যার জন্যে জহরলাল নেহেরু দায়ী।
  • কারও সঙ্গে আলোচনা না করেই তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
  • এতবড় ঘটনার কথা জানতেন না তাঁর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও।
  • কাশ্মীরে সন্ত্রাসে পাকিস্তানের মদত রয়েছে।
  • আমরা জিরো টলারেন্স নীতিতে লড়ব হিংসার মোকাবিলায়।
  • ঘরে ঢুকে মেরে আসব আমরা।
  • আমরা কোনও হামলা করিনি কোথাও।
  • বালাকোট হোক বা অতীতের সার্জিকাল স্ট্রাইক আমরা কখনও আগে আক্রমণ করিনি। আমরা  আত্মরক্ষার জন্যে লড়েছি।
     

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য সীমান্তবাসীদের জন্যে সংরক্ষণের বিষয়েও মুখ খুলেছেন অমিত শাহ। তিনি এদিন বলেন, ' আন্তর্জাতিক  বর্ডারের কাছাকাছি প্রতিদিন বিপদে থাকা মানুষের জন্যে সংরক্ষণ চালু করতে চায় সরকার। এই সংরক্ষণ কাউকে তুষ্ট করার জন্যে নয়।' তাঁর আরও দাবি,  'রাজনাথ সিংহের প্রদেয় সময়ের মধ্যেই সীমান্তে নিরাপত্তা স্বার্থে বাঙ্কার তৈরি করবে সরকার।'