সমতলে আছড়ে পড়ার আগে রীতিমত তাণ্ডব দেখাতে শুরু করেছে ঘূর্ণিঝড় নিভার। বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া এই ঘূর্ণিঝড় সমতলের দিকে যত এগিয়ে আসছে ততই বাড়ছে বৃষ্টির পরিমাণ। সঙ্গে দাপট দেখাচ্ছে ঝোড়ো হওয়ায়। রীতিমত বিপর্যস্ত অবস্থায় তামিলনাড়ু, পদুচেরির বিস্ততীর্ণ এলাকায়। প্রভাব পড়তে শুরু করেছে অন্ধ্রপ্রদেশ ও কর্ণাটকেও। তামিলনাড়ু ও পদুচেরিতে  প্রবল বৃষ্টির পাশাপাশি তীব্র বেগে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। ভারতের আহবাওয়া দফতর বা আইএমডি জানিয়েছেন এখনও পর্যন্ত ঝড়ের গতিবেগ ঘণ্টায় ১২০-১৩০ কিলোমিটার। ১৪৫ কিলোমিটার গতিবেগে নিভার সমতলে আছড়ে পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। আবহাওয়া দফতরের কথায় বুধবার মধ্যরাতে অথবা বৃহস্পতিবার খুব ভোরবেলায় এটি সমতলে আছড়ে পড়তে পারে। এই ঘুর্ণিঝড়ের কারণে লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে কারাইকল ও মামাল্লাপুরম  এলাকা। উপকূলবর্তী এই দুটি এলাকার মধ্যবর্তী অংশে আছড়ে পড়তে পারে নিভার। আবহাওয়া দফতর থেকে জানান হয়েছে সমতলের দিকে যত এগিয়ে আসছে নিভার ততই শক্তি বাড়াচ্ছে। আছড়ে পড়ার পর শক্তি হারাতে পারে। 

ঘুর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে ত্রস্ত তামিলনাড়ু। সব থেকে খারাপ পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে বুধবার সন্ধ্য়ে থেকেই চেন্নাই বিমান বন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আগামিকালও ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টির পূর্বভাস দিয়ে রেখেছে আবহাওয়া দফতর। মঙ্গলবার রাত থেকে বৃষ্টির কারণে চেন্নাইয়ের চেম্বারাম্বাক্কাম লেক এলাকা জল বাড়তে শুরু করেছে। ২০১৫ সালের পর এই প্রথম এই লেকটির লকগেট খুলে দিতে হয়েছে। হ্রদের জলস্তর বিপদ সীমার ওপরে রয়েছে। ইতিমধ্যেই আদায়ার নদীতে প্রায় ১ হাজার কুউসেক জল ছাড়া হয়েছে। চেন্নাইয়ের নিচু এলাকাগুলিতে জল জমতে শুরু করেছে। প্রবল ঝড়ের কারণে বিপদ এড়াতে চেন্নাই পুরসভা এলাকা থেকে সমস্ত হোডিং খুলে ফেলতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

অন্যদিতে চেন্নাইয়ে আগামিকালও সরকার ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাত থেকেই পদুচেরিতে জারা করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত জরুরি অবস্থা জারি থাকলেও প্রয়োজনে মেয়াদা আরও বাড়ানো হতে পারে বলে প্রশাসন সূত্রের খবর। মঙ্গলবার থেকেই উদ্ধারকাজে নেমেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। উপকূলবর্তী এলাকা থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে স্থানীয় বাসিন্দাদের।